banglanewspaper

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরা ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় অপ্রজিৎ ঘোষ (২৮) নামে এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে। সে মাগুরা সদর উপজেলার পাটকেল বাড়ি গ্রামের অরুন ঘোষের পুত্র। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার সন্ধায় তার মৃত্যু হয়। চিকিৎসা প্রদানে সংশ্লিষ্টদের অবহেলার কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন রোগীর স্বজনরা। এ সময় এক উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। 

নিহতের ভাই সাগর ঘোষ জানান, গত ১২ সেপ্টেম্বর সকালে পেটে ব্যাথার সমস্যা নিয়ে তার ভাইকে সদর হাসতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাধারণ গ্যাস জনিত সমস্যার কথা বলে তাকে তিন তলায় মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় তার শারীরিক অবস্থার অবনতির এক পর্যায়ে গতকাল নিচ তলায় সার্জারি বিভাগে প্রেরণ করা হয়। পরে সেখানে ডাক্তার সফিউর রহমানের তত্বাবধানে চিকিৎসা দেওয়াকালীন সময়ে সারাদিন একাধিকবার রোগীর শারীরিক কষ্ট বৃদ্ধিসহ অবস্থার অবনতির কথা জানালে ডাক্তার এবং সেবিকাদের কেউ কোন ভ্রুক্ষেপ না করে উল্টো তাদের সাথে খারাপ আচারণ করেন।

এরপরে সন্ধায় চিকিৎসারত অবস্থায় আকস্মিক তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় হাসপাতালে কর্মরত সংশ্লিষ্টদের অবহেলাসহ প্রয়োজনীয় সঠিক চিকিৎসা প্রদানের ক্ষেত্রে গুরুত্ব আরোপ না করার কারনে তার ভাইয়ের এমন মৃত্যু হয়েছে বলে দাবী করেন তারা। এ মৃত্যুর ব্যাপারে চিকিৎসায় অবহেলাকে দায়ী করে আদালতে মামলা করবেন বলেও জানান তিনি।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত ডাক্তার সফিউর রহমান অবশ্য এ সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, গত শনিবার ভর্তির পর অপ্রজিৎতের অবস্থার অবনতি ঘটলে গতকালই তাকে মেডিসিন বিভাগ থেকে নিচ তলায় সার্জারী বিভাগে প্রেরন করা হয়। এখানে আসার পর প্রয়োজনীয় সঠিক চিকিৎসা চলাকালীন সময়ে সাধারন ভাবে তার হয়েছে। এ ব্যাপারে কারো  কোন গাফিলতি ছিলনা বলে জানান তিনি।

রাতে অপ্রজিৎতের মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 মাগুরা