banglanewspaper

গাজীপুর সদরের কেশোরিতা এলাকার লাক্সারি স্মার্ট এনার্জি সেভিং ফ্যান লিমিটেড কারখানায় আগুনের ঘটনায় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলায় কারখানার পাঁচ মালিক ও এক ব্যবস্থাপককে আসামি করা হয়েছে।

ওই কারখানার নিহত শ্রমিক রাশেদুল ইসলামের বাবা ও শ্রীপুর উপজেলার মারতা গ্রামের বাসিন্দা কামাল হোসেন সোমবার মামলাটি করেন।

জয়দেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদুল ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ওসি জাবেদুল ইসলাম বলেন, প্রাণহানির অভিযোগে মামলায় কারখানার পাঁচ মালিকের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও দুই ব্যবস্থাপককে আসামি করা হয়েছে। এতে কারখানার মালিক জাহিদ হাসানসহ পাঁচ মালিক এবং কারখানার ব্যবস্থাপকের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।
গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ রাসেল শেখ জানান, মামলাটি করা হয়েছে নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে। তাই নিহতদের দাফন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছে।

রবিবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে ওই কারখানায় আগুনের ঘটনা ঘটে। জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও প্রাণ হারায় ১০ শ্রমিক। অগ্নিদগ্ধ হয় আনোয়ার হোসেন ও হাসান নামে আরও দুই শ্রমিক। দগ্ধ ওই শ্রমিককে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এদিকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা মরদেহগুলো স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে ডিএনএ পরীক্ষা করার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়। বিকালে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়।

তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার প্রণয় ভূষণ দাস লাশ হস্তান্তরের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 গাজীপুর