banglanewspaper

তাপমাত্রা যতই ওঠানামা করুক, শীত কমার লক্ষণ নেই। কুয়াশা ও মেঘলা আকাশের সঙ্গে আজ বৃহস্পতিবার নতুন উৎপাত হয়ে আসতে পারে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। আজ দুপুর পর্যন্ত কুয়াশা থাকতে পারে, বিকেলে আকাশ মেঘলা করে দেশের উপকূলীয় জেলাগুলোতে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হতে পারে। সন্ধ্যার দিকে সেই বৃষ্টির ছটা রাজধানী পর্যন্ত চলে আসতে পারে বলেও মনে করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। তবে দিন ও রাতের তাপমাত্রা সামগ্রিকভাবে বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

এদিকে এক দিন বিরতি দিয়ে রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে আবারও শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়েছে। ওই দুই বিভাগের বেশির ভাগ জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেছে। গতকাল বুধবার চলতি শীতে সবচেয়ে কম তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় গতকাল ৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। চলতি শীতে এর কাছাকাছি সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৯ ডিসেম্বর চুয়াডাঙ্গায়, ৭ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর গত শীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমেছিল তেঁতুলিয়ায়, ৪ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এ ব্যাপারে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস বলেন, আজ তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও শীতের দাপট খুব বেশি কমবে না। কারণ, সকাল থেকে মাঝারি কুয়াশা থাকতে পারে, বিকেল থেকে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হতে পারে। এতে শীতের অনুভূতি বাড়তে পারে।

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঘন কুয়াশার কারণে গত মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত প্রায় সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ ওঠানামা বন্ধ ছিল। রানওয়ের ভিজিবিলিটি কমপক্ষে ৬০০ মিটার থাকলে উড়োজাহাজ ওঠানামা করতে পারে। গতকাল সকাল ছয়টার দিকে এটি ৫০ মিটারের নিচে নেমে আসে। তবে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শাহজালাল বিমানবন্দরে ভিজিবিলিটি ছিল ৮০০ মিটার।

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের জ্যেষ্ঠ এয়ার ট্রাফিক অফিসার এস এম ওহিদুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টা থেকে ফ্লাইট ওঠানামা বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় গালফ এয়ার, বাংলাদেশ বিমানের কয়েকটি ফ্লাইট ঢাকায় অবতরণ করতে না পেরে কলকাতায় চলে যায়। এ ছাড়া ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের দুটি ফ্লাইট চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। রাতে যেসব ফ্লাইট ঢাকা ছাড়তে পারেনি, সেগুলো গতকাল সকাল সাতটার পর থেকে গন্তব্যে রওনা হতে শুরু করে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে বলা হয়েছে, কাল শুক্রবার পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হতে পারে। এরপর শনিবার থেকে আরেক দফা শৈত্যপ্রবাহ শুরু হওয়ার আশঙ্কা আছে। তিন থেকে পাঁচ দিন শৈত্যপ্রবাহটি থাকতে পারে, তারপর শীতের স্বাভাবিক আবহাওয়া শুরু হতে পারে।

গতকাল রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দুপুর থেকে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে রোদের দেখা পাওয়া যায়।

ট্যাগ: bdnewshour24 শীত বৃষ্টি