banglanewspaper

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের নিজ ভূমি রাখাইনে ফেরাতে মিয়ানমারের আন্তরিকতার অভাব দেখছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেছেন, ‘রোহিঙ্গা ফেরাতে মিয়ানমার সিরিয়াস না।’

বৃহস্পতিবার শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে রোহিঙ্গা গণহত্যা নিয়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ চায় রোহিঙ্গারা নিজ দেশে নিরাপত্তা ও সম্মানের সঙ্গে ফিরে যাক। কিন্তু এ বিষয়ে মিয়ানমার সরকার আন্তরিক নয়। রোহিঙ্গা নিতে মিয়ানমার সিরিয়াস নয়।’

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে শুরু থেকে বাংলাদেশ মিয়ানমারের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সহযোগিতা করে যাচ্ছে। অথচ দেশটি রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে নানা টালবাহানা করছে। বাংলাদেশের সঙ্গে সই করা দ্বিপক্ষীয় চুক্তির আলোকে দেশটি নিরাপদ প্রত্যাবাসন শুরু করার বিষয়ে একমত হলেও বাস্তবে সেটা প্রতিফলন হচ্ছে না। যার কারণে টানা দুইবার প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া ভেস্তে যায়।

আবদুল মোমেন বলেন, ‘আমরা তাদের এক লাখ রোহিঙ্গার তালিকা দিয়েছিলাম। কিন্তু তারা মাত্র আট হাজার রোহিঙ্গাকে ফিরিয়ে নিতে রাজি হয়, যার জন্য দুই দফা তারিখও নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু তারা সেটিও করেনি।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারের প্রচেষ্টা এখনও আলোর মুখ দেখেনি মন্তব্য করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে এখনও আমরা সফলকাম হতে পারিনি। শেখ হাসিনা যদি রোহিঙ্গাদের আশ্রয় না দিতেন তাহলে বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে বড় গণহত্যা হতো। তারপরও ২০ হাজার রোহিঙ্গা মারা গেছেন। অনেক বন্ধু দেশ এ ইস্যুতে সহযোগিতা করছে।’

‘১৩৪টি দেশ জাতিসংঘে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। ৯টি দেশের মধ্যে ৪টি বলেছে প্রতিবেশী শক্তিশালী বলে তারা বিপক্ষে রায় দিয়েছে। আং সান সু চিও নিজে স্বীকার করেছেন মিয়ানমারে হত্যাকাণ্ড হয়েছে।’
রোহিঙ্গা ফেরাতে সরকার কাজ করছে জানিয়ে মোমেন বলেন, ‘বাংলাদেশ মানবিক দিক থেকে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছিল। কিন্তু তাদের জোর করে দেশে ফেরত পাঠাতে চায় না। তারা যেন নিরাপত্তা ও সম্মান নিয়ে নিজ দেশে ফিরতে পারে, সে লক্ষ্যে কাজ চলছে।’

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে জট খুলতে চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে মিয়ানমার ও বাংলাদেশকে নিয়ে আলোচনায় বসতে যাচ্ছে চীন। কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, বেইজিংয়ের মধ্যস্থতায় ত্রিপক্ষীয় এই বৈঠকে প্রত্যাবাসন ইস্যুতে চীন নতুন করে কয়েকটি প্রস্তাব দেবে।

ট্যাগ: bdnewshour24 রোহিঙ্গা মিয়ানমার পররাষ্ট্রমন্ত্রী