banglanewspaper

এম.পলাশ শরীফ, বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের তেলীগাতি ইউনিয়নে ১০ম শ্রেণী পড়ুয়া স্কুল ছাত্রী বিথী আক্তার (১৫)কে প্রকাশ্যে পেটালেন গ্রাম পুলিশ মনির হাওলাদার। আহত ওই ছাত্রী বাগেরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনার তিন দিন অতিবাহিত হলেও ওই ছাত্রীর পরিবার পায়নি কোন সঠিক বিচার। স্কুল কর্তৃপক্ষ দায়সারাভাবে বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গত বুধবার সকালে তেলীগাতির হেড়মা বাজার এলাকায়।

ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীর পিতা বেল্লাল খান জানান, তার মেয়ে বিথী সুরেন্দ্রনাথ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী সকালে বাড়ি থেকে স্কুলে যাওয়ার পথিমধ্যে পারিবারিক দন্দের জের ধরে হরগাতি গ্রামের আলী আকবর হাওলাদারের পুত্র গ্রাম পুলিশ মনির হাওলাদার ও তার সহযোগী শাখাওয়াত ফকির বিথীকে পথিরোধ করে এবং তাকে মারপিট করে গুরুত্বর আহত অবস্থায় সে বিষয়টি শিক্ষকদেরকে অবহিত করেন। পরবর্তীতে চিকিৎসার জন্য বাগেরহাটে ভর্তি করা হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষনিক ঘটনাটি ইউপি চেয়ারম্যানকে অবহিত করে স্কুলে একটি বৈঠক বসায়। বৈঠকে কোনমতে দায়সারাভাবে ঘটনাটি ধামাচাপা দিয়ে এড়িয়ে যান কর্তৃপক্ষ।

এ সর্ম্পকে প্রধান শিক্ষক নিকুঞ্জ বিহারী জানান, তার স্কুলের ছাত্রীকে মারপিটের বিষয়টি স্থানীয়ভাবে চেয়ারম্যানকে অবহিত করেছেন। পরবর্তীকে এ ধরনের ঘটনা আর ঘটবেনা বলে চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং কমিটি ও অভিভাবককে আশ্বস্ত করেন। বিষয়টি নিস্প্রত্তি করেন।

এ ব্যাপারে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হান্নান জানান, স্কুল ছাত্রীকে আহত ঘটনা তিনি অবহিত নন। তবে এ ধরনের অপরাধ যে ঘটিয়েছে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। এ বিষয়ে চেয়ারম্যান মোর্শেদা আক্তার বলেন, স্কুল ছাত্রীর ওপর হামলার বিষয়টি শুনে তাৎক্ষনিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানা ওসিকে অবহিত করেছেন তিনি। গ্রাম পুলিশ মনির হাওলাদার বলেন, পারিবারিক দন্দে ঘটনা সাজানো হয়েছে। সকালে তার মাকে মারপিট করেছে ওই ছাত্রী ও তার বোন।

ট্যাগ: bdnewshour24 মোরেলগঞ্জে