banglanewspaper

প্রিমিয়ার ব্যাংকের রাজশাহীর শাখার ভল্ট থেকে কৌশলে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা সরিয়েছেন ক্যাশ ইনচার্জ শামসুল ইসলাম।

ভল্টে প্রায় সময় ১৫ কোটি টাকা থাকত। তিনি সামনের লাইন ঠিক রেখে পেছনের লাইন থেকে টাকা সরাতেন, যাতে কারও সন্দেহ না হয়। এই করে তিনি ৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা ব্যাংক থেকে সরিয়েছেন। এরপর এই টাকা দিয়ে তিনি জুয়া খেলেছেন। 

রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২–এর বিচারক সাদেকিন হাবিবের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন তিনি।

শামসুল ইসলামের বিরুদ্ধে এই টাকা আত্মসাতের অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার সময় মামলা করেন ব্যাংকের ওই শাখার ব্যবস্থাপক সেলিম রেজা খান। মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যা ছয়টার দিকে দিনের লেনদেন শেষে ক্যাশ মিলাতে গিয়ে তারা ৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকার হিসাবে মিলাতে পারেননি। তখনই ক্যাশ ইনচার্জ শামসুল ইসলামকে তাঁরা ধরে বসেন। রাত ১২টার দিকে ওই কর্মকর্তাকে নিয়ে থানায় আসেন।

নগরের বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, তাঁরা রাত ১২টার দিকে শামসুল ইসলামকে থানায় নিয়ে আসেন কথাবার্তা বলে মামলা করতে রাত দেড়টা বেজে যায়। থানায় আনার পরে তিনি টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করেন। তিনি টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন, কিন্তু টাকা ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করেননি। এ জন্য তাঁকে গত সোমবার তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।বুধবার রিমান্ড শেষে দুপুর ১২টার দিকে তাঁকে আদালতে পাঠানো হয়।তিনি ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। প্রায় সাড়ে ৪টার দিকে তাঁর জবানবন্দি রেকর্ড শেষ হয়।

ওসি বলেন, জবানবন্দিতে তিনি বলেছেন লোভে পড়ে তিনি ২০১৮ সাল থেকে কৌশলে ব্যাংকের ভল্ট থেকে টাকা সরিয়ে জুয়া খেলতে শুরু করেন । এই করে তিনি ৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা ব্যাংক থেকে সরিয়েছেন।

শাখা ব্যবস্থাপক সেলিম রেজা খান বলেন, ২৩ জানুয়ারি ভল্টের সমস্ত টাকা গণনার পর ৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা কম পাওয়া যায়। এ সময় শামসুল ইসলাম টাকা সরানোর কথা স্বীকারও করেন। বিষয়টি তাঁরা ওই রাতেই ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানান। পরে তাঁদের নির্দেশনা অনুযায়ীই থানায় মামলা করেন এবং রাতেই তাঁকে পুলিশে হস্তান্তর করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 ব্যাংক ভল্ট সাড়ে ৩ কোটি টাকা সরিয়ে জুয়া