banglanewspaper

আবারও ৩০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ জন্য দুই এক দিনের মধ্যে টেন্ডার আহ্বান করা হবে। মূল্য যাতে বৃদ্ধি না পায় সে জন্য সারা বছর টিসিবির মাধ্যমে সারা দেশে পেঁয়াজ বিক্রি কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

আজ শুক্রবার দুপুরে রংপুর নগরের শালবন এলাকায় নিজের বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি। 

গত ২৯ সেপ্টেম্বর ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়। দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয় নিজেদের রপ্তানি নীতি সংশোধন করে পেঁয়াজকে রপ্তানি নিষিদ্ধ পণ্যের তালিকায় ঢুকিয়েছে। এরপর থেকেই বাংলাদেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করে, একপর্যায়ে তা ৩০০টাকার কাছাকাছি গিয়ে পৌঁছে। সরকার পরিস্থিতি সামাল দিতে কয়েকটি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করে। এরই মধ্যে দেশি মুড়িকাটা পেঁয়াজ উঠতে শুরু করলে দাম কিছুটা কমে ১০০ টাকার মতো হয়। কিন্তু রাজধানীর বাজারে আবার পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। দেশি পেঁয়াজের কেজি ১৪০ থেকে ১৫০ টাকায় উঠেছে, যা এক সপ্তাহ আগে ১০০ টাকায় নেমেছিল। এ ছাড়া আমদানি করা পেঁয়াজের দামও কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা বেড়েছে।

পবিত্র রমজান উপলক্ষে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের মূল্য যাতে বৃদ্ধি না পায় সে জন্য সরকার কঠোর অবস্থান নিয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘মুনাফালোভী সিন্ডিকেট চক্র যাতে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করতে না পারে সে জন্য কঠোর নজরদারি নেওয়া হয়েছে। যারাই এ ধরনের অশুভ তৎপরতায় জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘এবার রমজান উপলক্ষে ৩০ হাজার মেট্রিক টন তেল, বিপুল পরিমাণ ছোলা আর চিনি আমদানি করা হবে। এসব সামগ্রী রমজান শুরুর ১৫ দিন আগে দেশে চলে আসবে। ফলে কোনোও সমস্যা হবে না।’

ট্যাগ: bdnewshour24 পেঁয়াজ আমদানি