banglanewspaper

অচেনা শহরে বিশ্বকাপ খেলতে পাড়ি দিয়েছেন আকবর আলি। তাঁর কাঁধে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেওয়ার গুরু দায়িত্ব।  কিন্তু হঠাৎ করে বড় দুঃসংবাদ উড়ে গেল আকবরের কাছে। তাঁর বড় বোন খাদিজা খাতুন আর নেই। এত বড় শোকও টলাতে পারেনি তরুণ এই অধিনায়ককে। মাথা ঠাণ্ডা রেখে নেতৃত্ব দিয়েছেন বাংলাদেশকে। এনে দিয়েছেন প্রথম কোনো বৈশ্বিক আসরের চ্যাম্পিয়নের মুকুট।

অথচ দক্ষিণ আফ্রিকায় বসেই বোনের মৃত্যুর সংবাদ পেয়েছিলেন আকবর। গত ২২ জানুয়ারি যমজ সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে মারা যান তাঁর বোন। স্বজন হারানোর এই কষ্ট বুকে চাপা দিয়ে লড়ে গেছেন আকবর। বোনকে হারানোর বেদনা নিয়ে দুই দিন পরই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামেন আকবর।

সেই আকবর গতকাল বিশ্বকাপ ফাইনালের মঞ্চে ইতিহাস গড়েছেন। অধিনায়কের নায়কোচিত ইনিংসে ভারতকে তিন উইকেটে হারিয়ে নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছে বাংলাদেশ।

ভিডিওঃ https://www.facebook.com/windofhimu/videos/3107010692665333/

গতকাল রোববার বল হাতে নিঃসন্দেহে দারুণ করেছে বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ের শুরুটাও হয়েছে দুর্দান্ত। কিন্তু ব্যাটিংয়ের মাঝপথে হঠাৎ ছন্দপতন। ১০২ রানে ছয় উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্বপ্ন প্রায় ভাঙার পথে। ঠিক সে সময় ঢাল হয়ে উঠলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক আকবর আলি। চাপে ভেঙে না পড়ে, শক্তহাতে হাল ধরলেন যুব অধিনায়ক। জুটি গড়লেন পারভেজের সঙ্গে। সেই জুটিতেই বিশ্বজয়ের পথে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

ম্যাচ শেষে অধিনায়ক জানালেন, বিপর্যয়ের মুখে কেমন পরিকল্পনা করেছিলেন তিনি। চরম বিপদে সতীর্থকে শুধু উইকেট টিকিয়ে রাখার পরামর্শই ছিল অধিনায়কের।

আকবর বলেন, “আমি এমন একজন মানুষ, যে সবকিছুই সহজভাবে নেয়। টুর্নামেন্টের শুরুর দিকে ব্যাট করার খুব একটা সুযোগ পাইনি। সুযোগের অপেক্ষায় ছিলাম। ব্যাটিংয়ে যখন নামি, একটা জুটির প্রয়োজন ছিল। আমার সঙ্গীকে বলেছিলাম, ‘আমাদের একটা জুটি গড়তে হবে, উইকেট হারানো যাবে না।’ সহজ পরিকল্পনা ছিল। তাতে সফল হয়েছি।”

ট্যাগ: bdnewshour24 বিশ্বকাপ