banglanewspaper

আলোচিত সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডে অপরিচিত দু’জন পুরুষ জড়িত ছিলো। এই দম্পতির ব্যবহৃত কাপড়ের সঙ্গে ওই লোকদের ডিএনএর মিল পেয়েছে র‍্যাপিড একশন ব্যাটেলিয়ন (র‍্যাব)। ৮ বছর পর সাগর-রুনি হত্যা মামলায় র‌্যাবের প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়।

সোমবার (২ মার্চ) বিকেলে এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাবের অতিরিক্ত ডিআইজি খন্দকার শফিকুল আলম হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ প্রতিবেদন দাখিল করেন।



প্রতিবেদনে বলা হয়, সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দুজন অপরিচিত পুরুষ জড়িত ছিলেন। সাগরের হাতে বাঁধা চাদর এবং রুনির টি-শার্টে ওই দুই পুরুষের ডিএনএর প্রমাণ মিলেছে বলেও প্রতিবেদনে দাবি করেছেন র‌্যাব।

আলোচিত এ মামলায় কারাগারে থাকা আসামি তানভীর হাসানের জামিন শুনানির সময় র‍্যাবের পক্ষ থেকে আদালতকে জানানো হয়েছিল, চারজনের মধ্যে দু’জনের ডিএনএ রিপোর্ট পাওয়া গেছে। সবশেষ আজকে পাঠানো অগ্রগতি প্রতিবেদনে দুজন অপরিচিত পুরুষের ডিএনএ পাওয়া গেছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারের বাসায় খুন হন সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি। এই মামলায় তদন্ত শেষ করার জন্য বিচারিক আদালত থেকে অন্তত ৭১ বার সময় নিয়েছে র‍্যাব। গত ১০ ফেব্রুয়ারি আদালতে মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন জন্য ধার্য ছিল। কিন্তু সেদিনও তদন্ত সংস্থা র‌্যাব প্রতিবেদন দাখিল করতে ব্যর্থ হয়। আদালতে আবারো সময় আবেদন করে সংস্থাটি। পরে ঢাকা মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৩ মাচ দিন ধার্য করেন।



তখন সাগর মাছরাঙা টিভি আর রুনি এটিএন বাংলায় কর্মরত ছিলেন। হত্যাকাণ্ডের সময় বাসায় ছিল তাদের সাড়ে চার বছরের ছেলে মাহির সরওয়ার মেঘ।

ট্যাগ: bdnewshour24 সাগর-রুনি