banglanewspaper

মজিবুর রহমান, কেন্দুয়া ( নেত্রকোণা) প্রতিনিধিঃ জাতীয় জরুরী সেবার হটলাইন নম্বর ৯৯৯। যেকোনো বিপদে পড়লে কিংবা সাইবার অপরাধের শিকার হলে ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে দ্রুত সেবা পাওয়া যায়।

বর্তমান সরকার মানুষের বিপদে সহায় হিসেবে যুক্ত করেছেন জরুরী এই হটলাইন সেবাটি। প্রযুক্তি ব্যবহারের আলোড়ন সৃষ্টিকারী এই সেবার সুফল বিষয়টি ঘরে ঘরে দিচ্ছেন কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান। প্রতিদিনই ৯৯৯ নম্বরে লিফলেট নিয়ে হাজির হন কোন না কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কিংবা হাট-বাজারে ও রাস্তার মোড়ে মোড়ে। এছাড়াও উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ৯৯৯ নম্বর সেবা বিষয়ে বিলবোর্ড টানিয়ে দিচ্ছেন তিনি। ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান জানান,যে কোনো অপরাধ বা দুর্ঘটনার শিকার হলে বা অনাকাঙ্খিক্ষত পরিস্থিতিতে এখন আর দিশেহারা হতে হবে না।

যে কোন পরিস্থিতিতে যেকেউ বিনা পয়সায় জাতীয় জরুরী সেবার হটলাইন নম্বর ৯৯৯ ফোন করলেই পুলিশ পৌঁছে যাবে ঘটনার স্থলে। এখন আর রাস্তায় কাউকে অপরাধের শিকার বা দুর্ঘটনায় ভুগতে দেখে মনঃকষ্ট নিয়ে মুখ ঘুরিয়ে বাড়ি ফিরতে হবে না।

৯৯৯ এ ফোন করে আপনি আপনার দায়িত্বটুকু পালন করতে পারেন। অনেক মানুষই এ ধরনের ঘটনা দেখে এড়িয়ে যান পরবর্তী সময়ে ‘পুলিশি ঝামেলা’র কথা ভেবে। তবে ৯৯৯-এ ফোন করে কোন রকম ঝামেলা পোহাতে হবে তথ্যদাতার। ওসি রাশেদুজ্জামান কেন্দুয়া থানায় যোগদানের পর থেকেই মাদক নিয়ন্ত্রণসহ সবধরনের অপরাধ রোধে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

কেন্দুয়া থানাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি থানাকে দালাল ও তদবির মুক্ত করার বিষয়ে তিনি সাহসী কঠোর ভূমিকা পালন করে থানাকে দালাল মুক্ত করেছেন। আলোকিত কেন্দুয়া গড়ার লক্ষে,চুরি, চিনতাই,জুয়া ,মাদক,বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং সহ সকল অন্যায়ের বিরূদ্ধে দৃপ্ত শপথে প্রতিনিয়ত লড়াই সংগ্রাম করে যাচ্ছেন তিনি। প্রশ্নপত্র পাশের ঘটনা, খুন,ধর্ষণ,মাদক-জুয়া নিয়ন্ত্রণসহ বিভিন্ন অপরাধ ঠেকাতে কেন্দুয়ার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ডিজিটাল ক্যামেরা স্থাপন, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান, গুজব নির্মূল, পৌরশহরে নাগরিক তথ্য নিবন্ধন কার্যক্রম,৯৯৯ জরুরী সেবা সম্পর্কে জনসাধারণকে অবহিত করে,সকল শ্রেণি মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ ও প্রশংসা কুড়িঁয়েছেন।

ইতিমধ্যে সার্বিক আইন শৃঙ্খলা দক্ষতার সাথে নিয়ন্ত্রণে জন্য স্বীকৃতি স্বরূপ, বার বার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলায় লাউদত্ত গ্রামের মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী সংগঠন “রফিক কোম্পানীর প্রধান” রনাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল রফিক মন্ডলের ঘর আলোকিত করে ১৯৭৮ সালের ১ মার্চ জন্মগ্রহণ করেন  মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান।

আনন্দ মোহন বিশ্ব বিদ্যালয় কলেজ থেকে কৃতিত্বের সাথে রাট্রবিজ্ঞানে এম.এস.সি পাস করে মানুষ গড়ার কারিগড়ে দ্বায়িত্ব নিয়ে প্রথম কর্মজীবন শুরু করেন শহীদ মেজর জেনারেল খালেদ মোশাররফ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে। পরে জামালপুর টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে প্রশিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ২০০৬ সালে কিশোরগঞ্জে উপপুলিশ পরিদর্শক (এসআই) হিসেবে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করে। গত বছর ২৪ মে কেন্দুয়া থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেন। মানব কল্যাণের মহান ব্রত নিয়ে পুলিশের পবিত্র পোশাক গাঁয়ে পরেছি। দ্বায়িত্ব- কর্তব্য বিষয়ে কারো সাথে আপোষ নেই।

থানায় আরো ৪টি সেবা হেলপ ডেক্স স্থাপনে কাজ হাতে নিয়ে এগুলো স্থাপন করতে পারলে বীর মুক্তিযোদ্ধগণ,প্রতিবন্ধী,শিশু-কিশোররা আরো সহজেই সেবা পাবেন বলে আই.জি.পি পদকপ্রাপ্ত ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান।

ট্যাগ: bdnewshour24 জরুরী সেবা হটলাইন ৯৯৯