banglanewspaper

জিম্বাবুয়ের টিসুমাকে বোল্ড করলেন সাইফুদ্দিন। সিরিজ জয় করে নিল বাংলাদেশ। এরপরই লিটন, তামিম, তাইজুলরা মেতে উঠলেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে নিয়ে। একাদশে ছিলেন না মুশফিকুর রহিম। তিনিও যোগ দিলেন তাইজুলদের সঙ্গে । তামিমরা তো মাশরাফি কাঁধেই তুলে নিলেন। এই উৎসবে একজনের থাকার কথা ছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্য; তিনি নেই। সাজার কারণে ক্রিকেট থেকেই দূরে আছেন আপাতত। তিনি সাকিব আল হাসান। কিন্তু মাশরাফি তাঁর কথা স্মরণ করলেন।

ধারাভাষ্যকার আতাহার আলী খান মাহমুদউল্লাহদের মন্তব্য নিচ্ছিলেন। এমন সময় দাঁড়ালেন মাশরাফিও। তিনি নিজেই এগিয়ে এসে আতাহারকে বললেন, ‘ এটা অনেক সম্মানের। আমার ছেলেরা দুর্দান্ত। তারা দলের জন্য নিজেদের সবটা দিয়েছে। আমি ছেলেদের ধন্যবাদ জানাই। বিশেষ করে সাকিবকে ধন্যবাদ জানাই। ও এখন থাকলে ব্যাপারটা অন্যরকম হতো।’ 

সর্বশেষ বিশ্বকাপটা মাশরাফির অধীনে খেলেছেন সাকিব আল হাসান। ২০১৯ সালের ইংল্যান্ড-ওয়েলস বিশ্বকাপে সাকিবের অলরাউন্ডার নৈপূণ্য ছিল অসাধারণ। মাশরাফির টি টোয়েন্টি ছাড়ার পর ওই ফরম্যাটের নেতৃত্ব সাকিবের কাছেই চলে আসে।

গত বছর অক্টোবরে সাকিব আল হাসানকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে আইসিসি। পরে অবশ্য সাজার মেয়াদ এক বছর করা হয়। আইসিসির দুর্নীতিবিরোধী নীতিমালার আইন লঙ্ঘনের অপরাধে সাকিবকে ওই শাস্তি দেয় আইসিসি।   

ট্যাগ: bdnewshour24 মাশরাফি