banglanewspaper

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার উমর মজিদ ইউনিয়নের পান্থাবাড়ি গ্রামে জুম্মার নামাজরত অবস্থায় আপন মাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে মানষিক ভারসাম্যহীন ছেলে মন্তাজুল (২৬)। ঘটনার পর এলাকাবাসী খুনি ছেলে মন্তাজুলকে আটক করে দড়ি দিয়ে বেঁধে রেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে তাকে গ্রেফতার করে।

শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ঐ মহিলা পান্থাবাড়ি গ্রামের সোলায়মান আলীর স্ত্রী মিনি আক্তার (৫০)।

এলাকাবাসী জানায়, জুম্মার নামাজের সময় মিনি আক্তার তার নিজের ঘরে নামাজ পড়তে বসে। এসময় তার মানষিক ভারসাম্যহীন ছেলে মন্তাজুল ঘরে থাকা কুড়াল দিয়ে মায়ের গলায় জোড়ে কোপ মারে। এতে মা মিনি আক্তারের গলা কেটে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। 

স্থানীয়রা আরো জানায় মাকে হত্যাকারী মন্তাজুল কয়েক বছর আগে মানষিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে। অনেক ডাক্তারী চিকিৎসার পর বর্তমানে তাকে বাড়িতে বেঁধে রেখে কবিরাজী চিকিৎসরা করছিল তার পরিবারের সদস্যরা। ঘটনার সময় তার হাত-পায়ের বাঁধন খোলা ছিল।

এব্যাপারে রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ কৃ কুমার সরকার বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল এসে আপন মাকে খুনের অপরাধে ছেলে মন্তাজুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এলাকাবাসী ও তার পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলে জানতে পেরেছি মন্তাজুল মানষিক রোগী।

ট্যাগ: bdnewshour24 নিহত