banglanewspaper

শেষ কবে এমন অখণ্ড অলস সময় পেয়েছেন মনে আছে? হয়তো না থাকারই কথা। কারণ, এই কর্মব্যস্ততাময় জীবনে দিনের পর দিন ঘরে বসে থাকার সময় কোথায়? ইচ্ছে থাকলেও সে সুযোগ হয়ে উঠে না। ব্যাচেলর জীবনে পড়াশোনার ফাঁকে কিছু সময় জুটলেও বিয়ের পর পুরুষদের দৌড়ঝাঁপ বাড়ে ক্যারিয়ার গড়ায়।

আর এই সুযোগে ঘরের স্ত্রী হরহামেশাই অভিযোগ তোলেন- ‘তোমার তো সময়ই নেই আমাকে সময় দেয়ার’, ‘তুমি তো সারাক্ষণ তোমাকে নিয়েই ব্যস্ত’, ‘আমার প্রতি তোমার কোনও খেয়ালই নেই’। কখনওবা অভিমানে এ-ও বলেন- ‘তুমি আমাকে ভালোই বাসো না’। শুধু পুরুষের ক্ষেত্রেই নয়, কর্মজীবী নারীর ক্ষেত্রেও ঘটে প্রায় একই ঘটনা। 

কিন্তু এবার সেই মান ভঞ্জনের ফুসরত এনে দিয়েছে করোনা ভাইরাস। এটাকে ব্যাঙ্গোক্তি করে ‘করোনার কৃপা’ও বলা যেতে পারে। আর এই সময়টা মোটেই নষ্ট করবেন না। কর্মব্যস্ততায় ঘরের যে প্রিয় মানুষটিকে এতদিন সময়ই দিতে পারেননি, এবার তাকে দুহাত ভরে সময় উপহার দিন। দিনরাত উজার করে সময় উপহার দিন। নিজেকে উৎকৃষ্ট সঙ্গী হিসেবে প্রমাণ করুন।



করোনা ভাইরাসের ছোবলে বিশ্বজুড়ে কোটি কোটি মানুষ গৃহবন্দি। বাংলাদেশেও চলছে অঘোষিত লকডাউন। সবকিছু বন্ধ। সারাদিন ঘরেই থাকতে হচ্ছে। এই সময়টাতে প্রিয়জনের কাছে নিজেকে কীভাবে অবিচ্ছিন্ন প্রেমিক প্রমাণ করবেন? চলুন জেনে নিই একনজরে-

* একসঙ্গে ভিডিও গেইম খেলুন।
* কোনও নতুন কিংবা অজানা জিনিস একসঙ্গে শিখতে চেষ্টা করুন। 
* শারীরিক সম্পর্কে নিজেদের নতুন করে আবিষ্কার করুন। 
* এক ঘরে থাকলেও মোবাইল ফোনে মেসেজ দিয়ে একজন আরেকজনকে ভালোবাসার কথা জানান। 
* ঘরের সব আসবাবপত্র নতুন করে সাজিয়ে নিন।
* ঘর পরিষ্কার, রান্নাবান্নাসহ সাংসারিক সব কাজ মিলেমিশে করুন।
* দুজনে সময় বুঝে বাসার ছাদে একটু হাঁটতে পারেন। 
* একসঙ্গে বেলকনিতে দাঁড়িয়ে গুনগুন করে গাইতে পারেন রবীন্দ্রসঙ্গীত অথবা রোমান্টিক ধাঁচের গান।
* জীবনের মধুর ও সুখের স্মৃতিগুলো রোমন্থন করুন। 
* করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি কেটে গেলে কোথায় ঘুরতে যাবেন সেই প্ল্যান সাজান।

মনে রাখবেন, যাই কিছু করুন না কেন- স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতেই কিন্তু আমরা সবাই হোম কোয়ারেন্টাইনে আছি। অতএব অপরিচ্ছন্ন অবস্থায় কখনোই ঘরের মানুষের সংস্পর্শেও যাওয়া যাবে না। একে অপরের পাশে থাকুন। তার আগে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকুন। সর্বোপরি সতর্ক থাকুন।

ট্যাগ: bdnewshour24