banglanewspaper

ইতালি, জামার্নি, বেলজিয়াম, চীন, ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলো যখন এক এক করে করোনার ছোবলে নীল হয়ে উঠছে তখন অনেকটাই ধরাছোঁয়ার বাইরে রাশিয়া। বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তির সমাজতান্ত্রিক এই দেশটিতে এখনও করোনা ভাইরাসের শূলদৃষ্টি তেমনভাবে নিক্ষেপ হয়নি। আগাম সতর্কতার অংশ হিসেবে ২৮ মার্চ থেকে ৫ এপ্রিল পর্যন্ত দেশটিতে এক সপ্তাহের জন্য কর্মবিরতি ঘোষণা করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। গেল সোমবার থেকে রাজধানী ও অন্যতম ফেডারেল শহর মস্কোতে বসবাসকারী সকল নাগরিকদের ওপর হোম কোয়ারেন্টাইন শুরু হয়েছে। 

এরইমধ্যে গা শিউরে ওঠা খবর পেলো রাশিয়া! তাদের শীর্ষ নেতা প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত!



স্থানীয় সময় গতকাল মঙ্গলভার মস্কোর প্রধান করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত কম্মুনারকা হাসপাতাল পরিদর্শনে যান পুতিন। এসময় তাকে সঙ্গ দেন হাসপাতালটির প্রধান চিকিৎক ডেনিস প্রোটসেনকো। যিনি নিজে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। দুজনের মধ্যে আলাপচারিতাও হয়। যদিও তখন দুজনের কারও শরীরেই সুরক্ষাসামগ্রী পরা ছিল না। 

টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, করোনা আক্রান্ত ওই চিকিৎসকের সঙ্গে করমর্দন করছেন পুতিন। 

এরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজের করোনা পজেটিভ নিশ্চিত করে ওই চিকিৎসক এক স্ট্যাটাসে লিখেন- ‘হ্যাঁ, এটা সত্যি যে পরীক্ষায় আমার করোনা ভাইরাস পজেটিভ এসেছে। এখন আমি কিছুটা ভালো বোধ করছি। আমি আমার অফিসেই আসোলেশনে আছি। আমার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আমাকে সহায়তা করছে।’

এদিকে পুতিনের দাফতরিক বাসভবন ক্রেমলিন থেকে জানানো হয়েছে, প্রেসিডেন্ট পুতিন নিয়মিত করোনা পরীক্ষা করছেন। তিনি আক্রান্ত নন। তার সবকিছু ঠিক আছে।

যদিও এরইমধ্যে গেল শুক্রবার পুতিন প্রশাসনের এক কর্মকর্তার শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে বলে ক্রেমলিন জানিয়েছে। তবে সেই কর্মকর্তাকে প্রেসিডেন্টের সংস্পর্শে আসতে দেয়া হয়নি। 

এর আগে করোনা রোগীদের খোঁজখবর নিতে গিয়ে পুতিনকে হ্যাজমাত পোশাক ও কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাসের যন্ত্র রেসপারেইটর পরা দেখা যায়। তবে কম্মুনারকা হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে তিনি এসব খুলে রেখেছিলেন। 

ট্যাগ: bdnewshour24