banglanewspaper

শিশির কুমার সরকার, বেনাপোল : যশোরের বেনাপোলে ভারত ফেরত ৫ বাংলাদেশী পাসপোর্ট যাত্রীকে দেহে উচ্চ তাপমাত্রা পাওয়ায় আইসোলেশন রাখা হয়েছে। শনিবার সকালে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন দিয়ে ভারত থেকে তারা দেশে ফেরে। দুপুর আড়াইটার সময় এ্যাম্বুলেন্সে করে তাদের শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হয়। বাকি ৩০ জনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে করোনা ভাইরাসের কোন লক্ষণ না পাওয়ায় ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য হাতে সীল দিয়ে যার যার বাড়িতে পাঠানো হয়।

ফেরত আসা বাংলাদেশীরা হলেন, যশোরের স্বপ্না রানী পাল যার পাসপোর্ট নং : বিডাব্লিই ০৬৬২২৩৫ এবং গায়ের তাপমাত্রা ১০০ ডিগ্রী ফারেনহাইট, খুলনার মো. দিদারুল ইসলাম দারা যার পাসপোর্ট নং : বিএন ০০৫৪২৪০ এবং গায়ের তাপমাত্রা ১০০.৫ ডিগ্রী ফারেনহাইট, মাগুরার বনমালী শিকদার পাসপোর্ট নং : ইই ০৩৮১০০৫ এবং গায়ের তাপমাত্রা ১০০.৫ ডিগ্রী ফারেনহাইট, গোপালগঞ্জের সৌরভ মন্ডল যার পাসপোর্ট নং : ইবি ০৪১৭৬৫১ এবং গায়ের তাপমাত্রা ১০০ ডিগ্রী ফারেনহাইট, বর্ণা বিশ^াস যার পাসপোর্ট নং : বিডাব্লিউ ০৫৫১৫৫৭ এবং গায়ের তাপমাত্রা ৯৯ ডিগ্রী ফারেনহাইট।

এর মধ্যে বিকাল সাড়ে ৩টায় স্বপ্না রানী পালকে যশোর মনিরামপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের তত্ত্বাবধানে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে আইসোলেশন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। 

গতকাল শুক্রবারও ৮১ জন বাংলাদেশী বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় দেশে ফিরে আসে। দু’দেশের দূতাবাস ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মধ্যে আলাপ-আলোচনার পর তাদের আটক থাকা দশা থেকে বের হয়ে বাংলাদেশে আসার অনুমতি দেয় ভারত কর্তৃপক্ষ।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ভারত সরকারের ঘোষিত লকডাউনে কলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় আটকে পড়া আরো ৩৫ জন বাংলাদেশী পাসপোর্ট যাত্রী শনিবার সকালে বেনাপোল দিয়ে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় দেশে ফিরেছে। এসময় তাদের মধ্যে ৫ জন যাত্রীর শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি পাওয়ায় তাদেরকে বাসায় না পাঠিয়ে বিশেষ ব্যবস্থায় শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হয়েছে। বিশেষ ব্যবস্থায় এদিন দেশে ফেরা যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার ক্ষেত্রে অধিক কড়াকড়ি ও সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আহসান হাবীব ভারত ফেরত ৫ বাংলাদেশী পাসপোর্ট যাত্রীকে আইসোলেশনের  বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করে জানান স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডাক্তাররা তাদের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন। এছাড়াও অন্যান্যদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে প্রত্যেকের পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা ও মোবাইল ফোন নম্বর রাখা হয়েছে এবং স্ব-স্ব জেলায় সেগুলো পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা ডা. ইউসুপ আলী জানান, ভারত থেকে আসা ৫ জন পাসপোর্ট যাত্রীর শরীরের তাপমাত্রা বেশি পাওয়ায় তাদেরকে শার্শা উপজেলা কেন্দ্রের আইসোলেশন রাখা হয়েছে। এর মধ্যে বিকাল সাড়ে ৩টায় স্বপ্না রানী পালকে যশোর মনিরামপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের তত্ত্বাবধানে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে আইসোলেশন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে উপরের নির্দেশে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ট্যাগ: bdnewshour24