banglanewspaper

যুক্তরাষ্ট্র পৌঁছেই স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে চলে গিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। গত ২১ মার্চ এক ভিডিও বার্তায় সাকিব নিজেই এ তথ্য জানিয়েছিলেন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হলেও সতর্কতা হিসেবে কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন তিনি। অবশেষে শেষ হয়েছে সাকিবের কোয়ারেন্টাইনের দিন। ১৪ দিন শেষে বাসায় ফিরেছেন তিনি। গতকাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সাকিবের গুরু কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন।

যুক্তরাষ্ট্রে পা রেখেই নিউ ইয়র্কের একটি হোটেলে উঠেছিলেন ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব গোপন করে নিষিদ্ধ হওয়া এই অলরাউন্ডার। স্ত্রী-কন্যার সঙ্গে কিছুদিন কাটাতে যুক্তরাষ্ট্র গিয়েছিলেন তিনি। এর মধ্যে করোনা পরিস্থিতি মাথা চাড়া দিয়ে উঠে। নিউ ইয়র্কের ঐ হোটেলে দুই সপ্তাহ কাটাতে হয়েছে সাকিবকে। গত শুক্রবার সুস্থভাবেই পরিবারের কাছে ফিরে গেছেন তিনি।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রে এখন করোনা ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছে। এরই মধ্যে অনেক বাংলাদেশিও মারা গেছেন সেখানে। দেশটিতে প্রতিনিয়ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে এবং সেটা অনেক দ্রুতগতিতে।

সুস্থভাবে বাসায় ফিরলেও করোনা পরিস্থিতি ঠিক না হওয়ার আগ পর্যন্ত বাসায় অবস্থান করতে হবে সাকিবকে। হোটেলে থাকলেও একেবারেই বসে থাকেননি এই বাঁহাতি অলরাউন্ডার। কোয়ারেন্টাইনে থেকেই নিজের নামে দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন চালু করেছেন। বাংলাদেশে করোনা মোকাবিলায় হাত বাড়িয়েছেন। এরই মধ্যে ২০ হাজার সুবিধাবঞ্চিত পরিবারকে তিনি তার ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সাহায্য করেছেন। সেই সঙ্গে করোনা পরীক্ষার কিট সরবরাহের জন্য ২০ লাখ টাকার তহবিল গঠন করেছেন কনফিডেন্স গ্রুপের সঙ্গে।

ট্যাগ: bdnewshour24