banglanewspaper

শিশির কুমার সরকার, বেনাপোল : লকডাউনে ভারতের কলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন স্থানে আটকে পড়া অরো  ৪৪ জন বাংলাদেশী বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফিরেছেন বিশেষ ব্যবস্থাপনায়। আজ সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে তারা ফিরে এসেছেন বাংলাদেশে। 

ভারত থেকে আসা ৪৪ বাংলাদেশী পাসপোর্ট যাত্রী বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে প্রবেশ করলে তাদের পাসপোর্টের কার্যক্রম শেষে ৪০ জনকে বেনাপোল বলফিল্ডে অবস্থিত পৌর বিয়ে বাড়ি কমিউনিটি সেন্টারে উদ্বোধন করা প্রাতিষ্ঠনিক কোয়ারেন্টাইনে এবং ২ জনকে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ও ২ জনকে যশোর সদর হাসপাতালে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাহিদুল ইসলাম জানান, সোমবার বিভিন্ন সময়ে ভারত থেকে আসা ৪৪ জন যাত্রীকে উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়েছে। 

শার্শা উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) খোরশেদ আলম চৌধুরী জানান, ভারত থেকে যে সকল পাসপোর্টযাত্রী বাংলাদেশে প্রবেশ করবে তাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়াতে কোয়ারেন্টাইনে রেখে স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পর বাড়ী পাঠানো হবে। কেননা তারা ভারত থেকে ফিরে নিজ নিজ বাড়ি গিয়ে সরকার ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ কিংবা চিকিৎসকদের পরামর্শ মানছে না। ১৪ দিন বাড়িতে অবস্থানের কথা বলা হলেও তা না মেনে নিজেদের ইচ্ছে মত পাড়া-মহল্লা কিংবা হাট বাজারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। সে কারণে স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। এজন্য দেশের স্বাস্থ্য বিভাগের পরামর্শ মোতাবেক এই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

বেনাপোলে নতুন করে আজ প্রাতিষ্ঠনিক কোয়ারেন্টাইনের উদ্বোধন করার প্রতিবাদে বাইপাশ সড়কে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ বিক্ষোভ মিছিল করেছে। ফলে বেনাপোল বন্দর এলাকায় বসবাসরত সাধারণ মানুষের মাঝে নতুন করে আতংক দেখা দিয়েছে। গত ৪ দিনে এ পর্যন্ত ১৮৫ জন বাংলাদেশে ফিরে এসেছে। আরো অনেক বাংলাদেশী বেনাপোল দিয়ে দেশে ফেরার অপেক্ষোয় রয়েছে। তবে শনিবার সকালে ভারত থেকে ফেরত আসা ৩৫ জনের মধ্যে ৫ জনের শরীরে উচ্চ তাপমাত্রা পাওয়া যায়। স্বাস্থ্য বিভাগ তাদেরকে হাসপাতালে প্রাতিষ্ঠানিক আইশোলেশনে রাখার ব্যবস্থা করেছেন। আজ সোমবার দুপুরে বেনাপোল পৌর কমিউনিটি সেন্টারে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের উদ্বোধন করেন যশোরের জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ, সাথে ছিলেন যশোরের সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন ও  বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন।

উল্লেখ্য, ভারত ফেরত এসব যাত্রীরা ভারত লকডাউনের আগেই ট্যুরিস্ট  ও মেডিকেল  ভিসা নিয়ে ভারতে যায়। করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে ভারত বাংলাদেশী যাত্রীদের শর্ত সাপেক্ষে দেশে ফেরার অনুমতি দেয়। কলকাতাস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে স্বাস্থ্য সনদ গ্রহণের পর বিশেষ অনুমতি সাপেক্ষে পশ্চিমবাংলা লকডাউনের পরও তারা দেশে ঢোকার অনুমতি পায়।

ট্যাগ: bdnewshour24