banglanewspaper

করোনা ভাইরাসে বির্যস্ত ব্রিটেন। দেশটির চলমান পরিস্থিতি সামালাতে হিমশিম অবস্থা। যা দিনদিন আরও অবনতি হচ্ছে। ক্রমাগত বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৭৮৬ জন। যা এখন পর্যন্ত একদিনে দেশটিতে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এ নিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ১৫৯ জন।  

 

এদিকে আক্রান্তের সংখ্যায় ব্রিটেন চার নম্বরে। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫ হাজার ২৪২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৩ হাজার ৬৩৪ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ১১৩৫ জন। 

 

এছাড়া ব্রিটেনে বর্তমানে ৪৮ হাজার ৯৪৮ জন আক্রান্ত রয়েছে। তাদের মধ্যে ৪৭ হাজার ৩৮৯ জন চিকিৎসাধীন, যাদের অবস্থা স্থিতিশীল। বাকি ১ হাজার ৫৬৯ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিউতে রয়েছে।

 

এদিকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর স্বেচ্ছা আইসোলেশনে ছিলেন। কিন্তু তার মধ্যে করোনার লক্ষণ ব্যাপক আকারে দেখা দেয়ার রবিবার রাতে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে।

 

সেন্ট্রাল লন্ডনের সেন্ট থমাস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ব্রিটিশ এই প্রধানমন্ত্রীর অবস্থা স্থিতিশীল আছে বলে জানিয়েছে ১০ নং ডাউনিং স্ট্রিট। তবে তাকে এখনও ভেন্টিলেটর দেয়ার দরকার হয়নি বলে জানানো হয়েছে। দেশটির এই সঙ্কটে ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব।

 

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ৩ মাস ছাড়িয়েছে। এখনও নিয়ন্ত্রণের লক্ষণ খুব একটা দৃশ্যমান নয়। করোনায় বিপর্যস্ত সারাবিশ্ব। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে ৭ হাজার ৩৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা এ যাবৎ বিশ্বজুড়ে একদিনে সর্বোচ্ছ মৃত্যুর রেকর্ড। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮২ হাজার ২৫ জন। 

 

এছাড়া বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৮৪ হাজার ৫৫৪ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত হয়েছে ১৪ লাখ ৩০ হাজার ৫৯০ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ৩ লাখ ১ হাজার ৯৪০ জন। 

 

সবমিলিয়ে, বর্তমানে ১০ লাখ ৪৬ হাজার ৬২৫ জন আক্রান্ত রয়েছে। তাদের মধ্যে ৯ লাখ ৯৮ হাজার ৭৩৫ জন চিকিৎসাধীন, যাদের অবস্থা স্থিতিশীল। আর ৪৭ হাজার ৮৯০ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিউতে রয়েছে।

 

ভাইরাসটি চীন থেকে ছড়ালেও বর্তমানে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৩৩৫ জন আক্রান্ত হয়েছে। আর মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজার ৮৪১ জনের। ইতালিতে ১ লাখ ৩৫ হাজার ৫৮৬ জন আক্রান্ত, বিপরীতে মারা গেছে ১৭ হাজার ১২৭ জন। এখন পর্যন্ত করোনায় সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে এবং আক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রে। 

 

এছাড়া স্পেনে এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৪১ হাজার ৯৪২ জন আক্রান্ত, আর ১৪ হাজার ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। জার্মানিতে ১ লাখ ৭ হাজার ৬৬৩ জন আক্রান্ত, ২ হাজার ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। চীনে আক্রান্ত ৮১ হাজার ৮০২, মারা গেছে ৩ হাজার ৩৩৩ জন। ফ্রান্সে আক্রান্ত ১ লাখ ৯ হাজার ৬৯, মারা গেছে ১০ হাজার ৩২৮ জন। ইরানে আক্রান্ত ৬২ হাজার ৫৮৯, মারা গেছে ৩ হাজার ৮৭২ জন। যুক্তরাজ্যে আক্রান্ত ৫৫ হাজার ২৪২, মারা গেছে ৬ হাজার ১৫৯ জন। বেলজিয়ামে আক্রান্ত ২২ হাজার ১৯৪, মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৩৫ জনের। নেদারল্যান্ডে আক্রান্ত ১৯ হাজার ৫৮০, মারা গেছে ২ হাজার ১০১ জন।

ট্যাগ: bdnewshour24