banglanewspaper

পারস্য উপসাগরে যুক্তরাষ্ট্রের উস্কানিমূলক কার্যক্রম ইরান গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি। গতকাল শনিবার (২৫ এপ্রিল) কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আলে সানির সঙ্গে টেলিফোন সংলাপে প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেছেন, তেহরান যেকোনো ধরনের সংঘর্ষে অনাগ্রহী। সেজন্য ইরান পারস্য উপসাগরে যুক্তরাষ্ট্রের উস্কানিমূলক কার্যক্রম গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। খবর আল-জাজিরা।

মার্কিন নৌ-বাহিনী গত সপ্তাহে দাবি করেছিল, উপসাগরে ইরানের কিছু সাঁজোয়া জলযান তাদের নৌবহরের সাথে উস্কানিমুলক আচরণ করছে। এর পরপরই বুধবার (২২ এপ্রিল) প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় তার নৌ কমান্ডারদের নির্দেশ দেন; বিরক্ত করলে তারা যেন গুলি করে ইরানি বোটগুলো ধংস করতে দ্বিধা না করেন। বিপরীতে ইরানের পক্ষ থেকেও নিরাপত্তা ঝুঁকি তৈরি করলে মার্কিন বাহিনীকে ধ্বংস করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। তখন থেকেই দুই দেশের উত্তেজনা চরমে।

এমন প্রেক্ষাপটে রুহানি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের উস্কানি সত্ত্বেও ইরান এই অঞ্চলে কোনো সংঘাতের উদ্যোগ নেবে না। ইরান অত্যন্ত নিবিড়ভাবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি পদক্ষেপ পর্যবেক্ষণ করছে তবে ইরান কখনো এই অঞ্চলে কোনো রকমের উত্তেজনা এবং সংঘাতের উদ্যোক্তা হবে না। মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে সংঘাত এবং উত্তেজনা যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য টেলিফোন সংলাপে কাতারের আমিরের ভূমিকার উপর জোর দেন তিনি।

টেলিফোন সংলাপে দুই পক্ষই এ অঞ্চলের দেশগুলোর স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা রক্ষার জন্য সহযোগিতা করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24