banglanewspaper

রণবীর কাপুরকে চড় মেরেছিলেন একবার সালমান। যার জন্যে বাবা ঋষি কাপুরের সঙ্গে সালমান খানের কথা বন্ধ ছিল দীর্ঘকাল। প্রিয় চিন্টুজি'র মৃত্যুর পর তাই তার কাছ থেকে ক্ষমা চেয়ে নিলেন বলিউডের ভাইজান। 

বললেন, “কথায় কথায় এবারের মতো ক্ষমা করে দিন চিন্টু স্যার। আপনার আত্মার শান্তি কামনা করি। পরিবারের প্রতি সমবেদনা রইল”, মন্তব্য সালমানের। সালমানের এই টুইটে ইতিমধ্যেই সরগরম নেটদুনিয়া! 

বৃহস্পতিবারই প্রয়াত হয়েছেন কাপুর পরিবারের অন্যতম সদস্য ঋষি কাপুর। কিন্তু কেন এখন টুইট করে ঋষির কাছ থেকে ক্ষমা চাইলেন সালমান? বলিউডে কাপুর-খানদের সম্পর্ক নিয়ে অনেক সময়েই অনেক গুঞ্জন শোনা যায়। কিন্তু সেসব উড়িয়ে দিয়েই তাদের দিওয়ালি, হোলি পার্টিতে মেতে উঠতে দেখা গিয়েছে বারবার। 

তবে ইন্ডাস্ট্রিতে সালমান এবং ঋষি কাপুরের সম্পর্ক কোনও দিনই যে বিশেষ ভাল ছিল না, সেকথাও জানেন ইন্ডাস্ট্রির অন্দরের লোকেরা। দীর্ঘ বহু বছর ঋষিকে সালমানের বিরুদ্ধে তীর্যক মন্তব্য করতে শোনা গিয়েছে। 

কেরিয়ারের শুরুর দিকে ঋষির সঙ্গে কাজ করেছিলেন সালমান। তখন তাদের সম্পর্ক মোটেই খারাপ ছিল না। তবে পরবর্তীতে রণবীর যখন ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখেননি তখন রণবীরের সঙ্গে তর্কের জেরে কোনও এক পার্টিতে চড় মেরেছিলেন ভাইজান। 

ঘটনাস্থলে সঞ্জয় দত্ত থাকায় পরিস্থিতি সামাল দিতে পেরেছিলেন। সালমান অবশ্য প্রথম থেকেই বদমেজাজি একথা সবারই জানা। তাই তাকে একটু সমীহ করেই চলেন সবাই। ঘটনা জানার পর সালমানের বাবা সেলিম খান কাপুর পরিবারের কাছে ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ দেন সালমাকে। 

কিন্তু তিনিও জেদি। ক্ষমা চাননি শেষপর্যন্ত। এরপর ক্যাটরিনার সঙ্গে তার বিচ্ছেদের জন্যও রণবীর কাপুরকেই দায়ী করেন সালমা। তিনি অবশ্য কোনও দিনই জোর করে সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার বিরোধী। তাই ক্যাটরিনার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর কোনওরকম মনোমালিন্য দেখাননি। 

তবে ঋষি-রণবীরদের সবসময়েই এড়িয়ে চলতেন। ২০১৭ সালেও ঋষির লেখা ‘খুল্লাম খুল্লা’ বইতে সালমানের বাবা সেলিম খান সম্পর্কে নানা মন্তব্য করেছিলেন ঋষি। এরপর সালমানের বিরুদ্ধে মামলা নিয়েও সোশ্যাল মিডিয়ায় তীর্যক মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছিল ঋষিকে। 

তবে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যায়, যখন সোনম কাপুরের রিসেপশনে সালমানের ভাইয়ের স্ত্রী সীমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন ঋষি। খারাপ মন্তব্য করেছিলেন সালমানের সম্পর্কেও। তারপর থেকেই কাপুরদেরকে পুরোপুরি এড়িয়ে যেতেন ভাইজান। 

সালমান এব ঋষির সম্পর্ক যে কোনও দিনই ভাল ছিল না, একথা ঘনিষ্ঠরাই বলতেন। তবে ২০১৮ সালে প্রবীণ অভিনেতার ক্যানসারের খবর প্রকাশ্যে আসতেই বরফ গলা শুরু করে দুই পক্ষের। ঋষির স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নিতেন সালমান। অবশেষে ঋষি কাপুরের চলে যাওয়ার সঙ্গেই সমস্ত রাগ, বিতর্কের অবসান  হল।

ট্যাগ: bdnewshour24