banglanewspaper

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘এবার ঈদ এসেছে ভিন্ন প্রেক্ষাপটে, ভিন্ন বাস্তবতা। দেশ পার করছে সংকটকাল। এই পরিস্থিতিতে আমি বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের ঈদের শপিং না করো এর অর্থ অসহায়, দরিদ্র, কর্মহীন জনগণের মাঝে বন্টনের আহ্বান জানাচ্ছি।’

শনিবার (৯ মে) এক ভিডিও বার্তায় তিনি এসব কথা বলেন।  

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এভাবেই আমরা এবারের ঈদ উদযাপন করতে চাই। চাই ত্যাগের মহিমায় নিজেদেরকে অসহায় জনগণের সঙ্গে একাত্ম করতে। পাশাপাশি ঈদের কেনাকাটায় সংযম ও পরিমিতবোধ বজায় রাখার জন্য বিত্তবান ও ধনাঢ্য ব্যক্তিবর্গের নিকট আহ্বান জানাচ্ছি।’

এসময় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার না করে আসুন আপনি ও আপনার দল এ সংকটকালে জনগণের পাশে দাঁড়ানো।  করোনা প্রতিরোধ মানবিক দায়িত্ব পালন করুন।’

সাধারণ ছুটি শিথিলের বিষয়ে সড়কমন্ত্রী বলেন, ‘জীবনের পাশাপাশি জীবিকার চাকাও সচল রাখতে হবে। তাই সরকার কিছু কিছু ক্ষেত্রে সাধারণ ছুটি শিথিল করেছে, শপিংমল খোলার অনুমতি দিয়েছে।’

‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমাদের অর্থনীতিকে উৎসব কেন্দ্রীক একটা প্রভাব আছে। সরকার জনগণের ওপর ছেড়ে দিয়েছে,  শপিংয়ে যাওয়ার বিষয়টি। কাউকে বাধ্য করেনি। তবে সেখানেও প্রশাসনের নজরদারি থাকবে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের করোনা পরিস্থিতি আমাদের চেয়েও খারাপ। তারপরও তারা কিছু কিছু ক্ষেত্রে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাওয়ার জন্য লকডাউন শিথিল করছে।  আমেরিকার ৪৭ টি অঙ্গরাজ্যে লকডাউন তুলে নিচ্ছে। স্পেন, ইটালি, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশে অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে লকডাউন শিথিল করছে।’

করোনা যোদ্ধাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা যোদ্ধাদের  প্রতি আমি আহ্বান জানাচ্ছি আপনারা দেশ-জাতির আশার আলো। সম্মুখসারির যোদ্ধা। আপনার সাহসিকতার সাথে কাজ করছেন। আপনার এবং আপনার পরিবারের সুরক্ষায় শেখ হাসিনা সরকার আপনাদের পাশেই আছে। আপনাদের অদম্য মনোবল ও জনগণের সহযোগিতা নিয়ে আমরা এ সংকট থেকে বেড়িয়ে  আসবো ইনশাল্লাহ।’

পারিবারিক সহিংসতা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনাকালে পারিবারিক সহিংসতা উদ্বেগ জনক হারে বেড়েই চলেছে, ধরনের সহিংসতা করোনা বিস্তারের সহায়ক হতে পারে।  আমি সকলকে রমজানের সময় সংযমী ও ধৈর্য ধারণের আহ্বান আহ্বান জানাচ্ছি।’

গুজব ও অপপ্রচার ভাইরাসের চেয়েও ভয়ঙ্কর দাবি করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি, এক শ্রেণির মানুষ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং অনলাইনে গুজব ছড়িয়ে যাচ্ছে।  কোনো ঘটনা না ঘটলেও তা রটানো হচ্ছে।  এসকল গুজব ও অপপ্রচার উদ্দেশ্য মূলক।  গুজব ও অপপ্রচার ভাইরাসের চেয়েও ভয়ঙ্কর।’

দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহবানে সাড়া দিয়ে যারা এতদিন ঘরে অবস্থান করছেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেছেন তাদের জানাচ্ছি আন্তরিক ধন্যবাদ। আমাদের এই পরিস্থিতিতে কিছুতেই মনোবল হারালে চলবে না। মাস্ক পরা, হাত ধোঁয়া,  স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার বিষয়টি আরো কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে।’

ট্যাগ: bdnewshour24