banglanewspaper

শনিবারের বিকালে সোশ্যাল সাইটে একটা পোস্ট দিলেন সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। পোস্টে লেখা, ' জন্মদিনে অনেক অনেক শুভেচ্ছা, বান্টু দা।' এই 'বান্টু' ব্যক্তিটি যে কে, সেটা ইতোমধ্যেই তামিম ইকবালের লাইভের কল্যাণে সবাই জেনে গেছেন। মাশরাফির পোস্ট করা ছবিতেও বিষয়টি পরিস্কার হয়ে গেছে। তিনি মুশফিকুর রহিম। দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে যিনি 'বান্টু' হিসেবে পরিচিত। বাংলাদেশের 'মি. ডিপেন্ডেবল' এর আজ ৩৩তম জন্মদিন।

১৯৮৭ সালের ৯ মে বগুড়ার মাটিডালিতে জন্মগ্রহণ করেন মুশি। আজ তিনি ৩৩ পেরিয়ে ৩৪ এর কোটায়। পাল্টে গেছে অনেক কিছু, পালটেছেন মুশফিকও। তরুণ থেকে যুবক আর যুবক থেকে লৌহমানব। বাংলাদেশের ক্রিকেটের অন্যতম বড় তারকা। পঞ্চপাণ্ডবের অন্যতম। বাংলাদেশের সবচেয়ে পরিশ্রমী ক্রিকেটার হিসেবে তিনি পরিচিত। জাতীয় দলের নির্ভরতার প্রতীক। দেশের ক্রিকেটে গত এক যুগের সকল উত্থানপতনের সাক্ষী তিনি।

২০০৫ সালে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অভিষেক হয় মুশফিকের। প্রথম ইনিংসে ৫৬ বল মোকাবিলায় করেন ১৯ ও দ্বিতীয় ইনিংসে আউট হন ৩ রান করে। অথচ, সেই মুশফিক নিজেকে কতই না পরিবর্তন করেছেন প্রচণ্ড পরিশ্রমের মাধ্যমে। হয়ে উঠেছেন বিশ্বমানের ব্যাটসম্যান। দেশের হয়ে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। এখন তার ডাবলের সংখ্যা ৩টি। টেস্টে দেশের সর্বোচ্চ ২১৯ রানের রেকর্ডটাও মুশফিকেরই দখলে।

সাদা পোশাকের এই ফরম্যাটে এখনও পর্যন্ত ৭০ ম্যাচ খেলে ৩৬.৭৭ গড়ে করেছেন ৪৪১৩ রান। তিন ডাবল সেঞ্চুরি ছাড়াও সেঞ্চুরি করেছেন আরও ৪টি। ফিফটি ২১টি। ২১৮ ওয়ানডেতে ৩৬.৩১ গড়ে করেছেন ৬১৭৪ রান। হাঁকিয়েছেন ৭টি সেঞ্চুরি। তবে আরও দুইবার তিনি আউট হয়েছেন ৯৮ ও ৯৯ রানে। ফিফটি মোট ৩৮টি। টি-টোয়েন্টির ৮৬ ম্যাচে ২০.০৩ গড়ে করেছেন ১২৮২ রান, নামের পাশে আছে ৫টি ফিফটি।

ট্যাগ: bdnewshour24