banglanewspaper

সাম্প্রতিক বিশ্বে করোনা ভাইরাসকে ছাপিয়ে রহস্যের নাম উঠছেন উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জনং উন। গেল এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি হঠাৎ করেই আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে তার নিখোঁজ হওয়ার খবর আসে। ধীরে ধীরে গুঞ্জন উঠে তিনি মারা গেছেন। কিন্তু বিশ্ববাসীর সব সংশয় উড়িয়ে প্রায় ২০ দিন পর গত ১ মে প্রকাশ্যে আসেন কিম। ওই দিনই রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ের কাছে সানচিয়নে একটি সার কারখানার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাজির হন তিনি। 

আবারও এই রহস্যময় নেতার নিখোঁজ হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়েছে। গত ২ সপ্তাহ ধরে তার কোনও খোঁজ মিলছে না। তার অবস্থান নিয়েও নতুন গুজব ছড়িয়ে পড়ছে।

একাধিক স্যাটেলাইট চিত্র বিশ্লেষণে বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ১ মে সানচিয়নে সার কারখানা উদ্বোধনের পরেই নৌ-পথে ইয়টে (বিলাসবহুল নৌকা) চড়ে তার আগের অবস্থান উইনসেনে ফিরে গেছেন কিম জং উন। সেখানেই নিবিড় পর্যবেক্ষণে তার চিকিৎসা চলছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ইউকে এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গেল কয়েক সপ্তাহ ধরে বেশ কয়েকটি ইয়টকে কিমের প্রাদাসের বাইরে পোর্টে দেখা গেছে। এখনও একটি বিলাসবহুল জাহাজ ভিলার কাছাকাছি আছে। এসব ইয়টগুলো কিমের ফের ইউনসেনে ফিরে যাওয়ার ইঙ্গিতকে জোরালো করছে।

২০ দিনেরও বেশি আত্মগোপনে থাকার পর গত ১ মে কিমের প্রকাশ্যে আসার খবর উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে প্রচার হওয়ার পর এখন প্রশ্ন উঠছে- তিন সপ্তাহ ধরে অজ্ঞাতবাসে থাকার পর কেন তিনি হঠাৎ প্রকাশ্যে আসলেন? কেনইবা আবার অজ্ঞাতবাসে গেলেন? রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে যে ছবিগুলো প্রচার করা হয়েছিল সেগুলো কি সত্যিই কিমের ছিল? নাকি তার বডি ডাবল ব্যবহার করা হয়েছিল?

এ নিয়ে তুমুল সংশয়ের মুখে চীনের এক মানবাধিকার কর্মী ও ব্লগার বিস্ফোরক তথ্য ছুড়ে দিয়েছেন। জেনিফার জেং নামে ওই ব্লগার সামাজিক মাধ্যমে দেয়া এক পোস্টে লিখেছেন- ‘কিম জং উন নাকি তার বডি ডাবল!’ অর্থাৎ ঠিক কিমের মতোই দেখতে একজনকে তার জায়গায় উপস্থাপন করা হয়েছে। 

এমন বিস্ফোরক দাবির স্বপক্ষে ছবি পোস্ট করে প্রমাণও দিয়েছেন জেনিফার জেং। কিমের আগের ছবিগুলোর সঙ্গে তার সার কারখানা উদ্বোধনের ছবির বেশ কিছু অমিল তিনি দেখিয়েছেন। যা তার সন্দেহকে আরও উস্কে দিচ্ছে। নতুন ছবিতে কিমকে বেশ মোটা দেখায়। এছাড়াও তার মুখের আকৃতি, চুলের স্টাইল ও দাঁতের মাঝেও কিছু গুরুত্বপূর্ণ অমিল দেখিয়েছেন ওই ব্লগার।

এখন দেখার বিষয়, এইসব প্রমাণাদিকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়ে আবার কবে জনসম্মখে আসেন বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর এই নেতা। নাকি শেষ পর্যন্ত সন্দেহই সত্যি হয়- সেটি নিশ্চিত হতেও অপেক্ষা করতে হবে।

ট্যাগ: bdnewshour24