banglanewspaper

মহামারি করোনা পরিস্থিতির কারণে আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতরে এবার জাতীয় ঈদগাহসহ খোলা মায়দানে ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হবে না। তবে অন্যান্য বছরের মতো এ বছরও ঈদের দিন সকাল থেকে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে পর্যায়ক্রমে ৫টি ঈদের নামাজের জামায়াত অনুষ্ঠিত হবে। মুসল্লিদের উপস্থিতি ওপর নির্ভর করে প্রয়োজনে এই জামায়াত আরও বাড়ানো হবে। 

শুক্রবার (২২ মে) ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে বাংলাদেশে আগামী রবি কিংবা সোমবার মুসলিম সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। 

ইফার বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ঈদের জামায়াতে অংশ নেয়া মুসল্লিদের প্রতি মাস্ক ব্যবহার, জায়নামাজ বাসা থেকে নিয়ে আসা, নামাজ শেষে কোলাকুলি না করাসহ বেশ কিছু শর্ত সাপেক্ষে মসজিদে ঈদের নামাজ আদায়ের অনুমতি দিয়েছে সরকার। 

সেখানে বলা হয়, ঈদের দিন সকাল ৭টা, ৮টা, ৯টা, ১০টা ও ১০টা ৪৫ মিনিটে বায়তুল মোকাররমে পর্যায়ক্রমে এই ৫টি জামায়াত অনুষ্ঠিত হবে।

সকাল ৭টায় প্রথম জামায়াতে ইমাম থাকবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান। মুকাব্বির থাকবেন মুয়াজ্জিন হাফেজ ক্বারি কাজী মাসুদুর রহমান। 

সকাল ৮টায় দ্বিতীয় জামায়াতে ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী। মুকাব্বির থাকবেন মুয়াজ্জিন হাফেজ ক্বারি হাবিবুর রহমান মেশকাত।

সকাল ৯টায় তৃতীয় জামায়াতে ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা এহসানুল হক। মুকাব্বির থাকবেন মুয়াজ্জিন মাওলানা ইসহাক।

সকাল ১০টায় চতুর্থ জামায়াতে ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মহিউদ্দিন কাসেম। মুকাব্বির থাকবেন বায়তুল মোকাররমের প্রধান খাদেম মো. শহীদুল্লাহ।

সবশেষ ১০টা ৪৫ মিনিটে পঞ্চম জামায়াতে ইমাম থাকবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুহাদ্দিস হাফেজ মাওলানা ওয়ালিয়ুর রহমান খান। মুকাব্বির থাকবেন বায়তুল মোকাররমের খাদেম হাফেজ মো. আমির হোসেন।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এই ৫টি ঈদের জামায়াতে কোনও একটিতে যদি উল্লিখিত কোনও ইমাম অনুপস্থিত থাকেন তবে বিকল্প হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনেরে মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

ট্যাগ: bdnewshour24