banglanewspaper

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে আরোপিত লকডাউনের পর অর্থনীতি চাঙ্গা করতে মধ্য জুন থেকে পুনরায় পর্যটন মৌসুম চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে গ্রিস সরকার। দেশটির প্রধানমন্ত্রী কাইরিয়াকস মিৎসতাকিস জানান, আগামী ১৫ জুন থেকে ধীরে ধীরে পর্যটন খাতের কার্যক্রম শুরু করা হবে। একই সঙ্গে ১ জুলাই থেকে চালু করা হবে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট। খবর এএফপি।

মিৎসতাকিস জানান, গত দুই মাসে গ্রিসে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ১৭০ জনেরও কম। তার সরকার দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ায় করোনার সংক্রমণ সীমাবদ্ধ রাখতে কার্যকর ভূমিকা রেখেছে। গ্রিসে ভ্রমণের ক্ষেত্রে বিষয়টি পর্যটকদের মধ্যে নিরাপত্তা, বিশ্বাসযোগ্যতা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে আত্মবিশ্বাস সৃষ্টি করবে। 

তিনি আরো বলেন, ১৫ জুন থেকে পর্যটকদের জন্য দেশের হোটেলগুলো পুনরায় খোলা যাবে। তাছাড়া ১ জুলাই থেকে পর্যায়ক্রমে সরাসরি পর্যটন গন্তব্যে চালু করা হবে ১ জুলাই থেকে। আমরা ভাইরাসের সংক্রমণজনিত স্বাস্থ্যঝুঁকির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়ী হয়েছি। এবার অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের যুদ্ধেও জয়ী হব বলে আশা করছি।

দেশটির পর্যটনমন্ত্রী হ্যারি থিওচ্যারিস বলেন, এরই মধ্যে যেসব দেশ গ্রিসে ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেগুলোর একটির তালিকা তাদের হাতে এসেছে। মে মাসের শেষে দেশগুলো পুনরায় ফ্লাইট চালুর কথা ভাবছে। এর মধ্যে প্রথম যেসব দেশ থেকে পর্যটকরা আসবেন, তার মধ্যে অন্যতম হলো বুলগেরিয়া, জার্মানিসহ উত্তর ইউরোপীয় দেশ। তালিকায় রয়েছে ইসরায়েলের নামও। 

গ্রিসে পর্যটনের ক্ষেত্রে পর্যটকদের ঢালাও কোয়ারেন্টিন কিংবা ভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষার সম্মুখীন হতে হবে না। তাছাড়া গ্রিসের পর্যটন দ্বীপগুলোয় করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত পরিচর্যায় অন্তত ৬০০ বেড আলাদা করে রাখা হবে। 

উল্লেখ্য, গ্রিসে ১ কোটি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষা করা হয়েছে ১ লাখ ৪০ হাজারেরও কম।

ট্যাগ: bdnewshour24