banglanewspaper

করোনা ভাইরাসের ছোবলে সব কিছুই লণ্ডঘণ্ড, তবুও পরিবারের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগির আকুতি। তাই প্রিয়জনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন রাজধানীর ঢাকাবাসীকে।

করোনায় মহাসড়কে রাখা পুলিশের চেকপোস্ট তুলে নেয়া হয়েছে। এই সুযোগই নিয়েছে মানুষ। যদিও ঢাকার দুই প্রবেশ পথ প্রাইভেটকার ও মাইক্রোবাসের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া, কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া রুটে ফেরি সার্ভিস চালু হওয়ায় এসব ঘাটমুখো মহাসড়কে ঘরেফেরা মানুষের ঢল নেমেছে। চাপ বাড়ছে ফেরি ঘাটে। পারাপারের সময় মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব। 

এদিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশের চেকপোস্টে বাধা না থাকায় গণপরিবহন ছাড়া সবধরনের যানবাহন চলাচল করছে অবাধে।

বাড়ি ফেরা মানুষের ঢল ঠেকাতে গত তিনদিন আগে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ রুটে ফেরি সার্ভিস বন্ধ করে দেয়া হয়। অপরদিকে যানবাহন ফেরাতে মানিকগঞ্জে জেলায় ঢোকা এবং বের হওয়ার প্রবেশ মুখে বসানো হয় পুলিশের চেক পোস্ট। ফলে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মানুষের ঢল অনেকটা কমে আসে। ফেরিঘাটেও মানুষের ভীড় কমে যায়।

কিন্তু আজ শুক্রবার ভোর থেকে ব্যক্তিগত যানবাহনের চলাচল এবং ফেরি সার্ভিস চালু করা হয়। ফলে ভোর থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মানুষের ঢল নামে। তারা ভাড়ার প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, পিকআপ, সিএনজি, হ্যালোবাইক, ইঞ্জিন চালিত রিকশায় যে যেভাবে পারছে গন্তব্যে রওনা দেয়।

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের গোলড়া চেকপোস্টে কর্তব্যরত পুলিশের এসআই রফিকুল ইসলাম রাফি জানান. মৌখিকভাবে তাদের গণপরিবহন ছাড়া ব্যক্তিগত যানবাহন চলাচলে বাধা না দেয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

আরিচা সেক্টরের বিআইডব্লউটিসির সহকারী ব্যবস্থাপক মহিউদ্দিন রাসেল জানান, গতরাত ১১টা থেকে ফেরি সার্ভিস চালু হয়েছে। বর্তমানে ৬টি ফেরি দিয়ে পারাপার করা হচ্ছে। তিনি জানান , ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তারা ফেরি সার্ভিস চালু করেছেন।

ট্যাগ: bdnewshour24