banglanewspaper

অজ্ঞাতবাস কাটিয়ে ফিরে আসার পর থেকেই একের পর এক বিতর্কিত সিদ্ধান্তে জড়িয়ে পড়ছেন উত্তর কোরিয়ার স্বৈরাচারী শাসক কিম জং উন। এবার আরও এক বিতর্কিত নির্দেশ ঘোষণা করেছেন উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রনেতা।

ব্রিটেনের এক্সপ্রেস-এর এক রিপোর্ট অনুযায়ী, এবার কিশোর কিশোরীদের যৌনতায় 'নিষেধাজ্ঞা' জারি করে তা 'দেশদ্রোহিতা' বলে ঘোষণা করেছেন কোরিয়ার কিম।

রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার আগে যৌনতা আইনত নিষিদ্ধ উত্তর কোরিয়ায়। তবু আইনের ফাঁক গলে যৌনতায় মেতে ওঠে হাইস্কুলের পড়ুয়ারা। এই খবর কিমের কানে পৌঁছতেই খেপেছেন উত্তর কোরিয়ার শাসক।

নাবালকদের যৌনতার জন্য 'পশ্চিমী সাম্রাজ্যবাদ'কেই দায়ী করেছেন কিম জং উন। নিজের দেশে এই ধরনের যৌনতায় ইতি ঘোষণা করতেই পুরনো আইনকেই আরও কঠোর বানিয়েছেন শাসক।

'প্রতিদিন অধিক সংখ্যায় পড়ুয়ারা যৌনতায় লিপ্ত হচ্ছে। হাইস্কুলের পড়ুয়াদের এই নেশা থেকে উদ্ধারে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করছে শাসকদল।' পিয়ংইয়ংয়ের এক সূত্রকে উদ্ধৃত করে প্রকাশিত রেডিও ফ্রি এশিয়ায়।

এমনকী স্কুলগুলিকে পড়ুয়াদের ফোন বা অন্যন্য ডিভাইজের উপর নজরদারির নির্দেশেও দেওয়া হয়েছে। সেই মতো 'রেড ফ্ল্যাগ' অ্যাপ বানানো হয়েছে সরকারি উদ্যোগে। কার্যত জোর করেই পড়ুয়াদের ফোন বা ল্যাপটপে এই অ্যাপ ইনস্টল করতে নির্দেশ দিচ্ছে স্কুলগুলি। এই অ্যাপের মাধ্যমে পর্ন জাতীয় কোনও সাইটে ইউজার গেলেই, তা রেকর্ড হয়ে যায় এবং স্ক্রিনশট উঠে যায়।

আরও জানা গেছে, যে স্কুলের পড়ুয়ারা যৌনতায় সময় ধরা পড়বে, সেই স্কুলের শিক্ষক ও পড়ুয়ার অভিভাবকের বিরুদ্ধেও কিমের নির্দেশে ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন।

পিয়ংইয়ং সূত্রকে উদ্ধৃত করে দ্য এক্সপ্রেস জানিয়েছে, 'দেশদ্রোহিতার সমান শাস্তির নিদানে এবার যৌনতায় ভয় পাচ্ছে কোরিয়ার কিশোর কিশোরীরা।'

ট্যাগ: bdnewshour24