banglanewspaper

করোনা ভাইরাসে নিরোদ চন্দ্র মন্ডল (৫২) নামে আরও এক পুলিশ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় পুলিশের ১৬ সদস্যের মৃত্যু হলো। 

মঙ্গলবার (২ জুন) পুলিশ সদর দফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে সোমবার দুপুরে রাজধানীর রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিরোদ চন্দ্র মৃত্যুবরণ করেন।

নিরোদ চন্দ্র ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মিরপুর বিভাগে পল্লবী জোনে স্টেনোগ্রাফার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সম্প্রতি করোনা পজেটিভ হওয়ায় তিনি কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি হন।

তার বাড়ি ফরিদপুর জেলায়। তিনি স্ত্রী, এক কন্যা ও এক পুত্র রেখে গেছেন।

পুলিশের ব্যবস্থাপনায় তার মরদেহ গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হয়। সেখানে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ধর্মীয় বিধান অনুযায়ী তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

করোনাযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী অপর ১৫ জন পুলিশ সদস্য হলেন- পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) উপ-পরিদর্শক মো. রাসেল বিশ্বাস (৩৫), ডিএমপির কনস্টেবল জালাল উদ্দিন খোকা (৪৭), সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শ্রী রঘুনাথ রায় (৪৮), কনস্টেবল জসিম উদ্দিন (৪০), এএসআই মো. আব্দুল খালেক (৩৬), কনস্টেবল মো. আশেক মাহমুদ (৪৩), উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুলতানুল আরেফিন (৪৪), এসবির এসআই নাজির উদ্দীন (৫৫), এসআই মো. মজিবুর রহমান তালুকদার (৫৬), চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কনস্টেবল মো. নঈমুল হক (৩৮), চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের কনস্টেবল মো. মোখলেছুর রহমান, ডিএমপির নায়েক আল মামুনুর রশীদ (৪৩), রাজশাহী রেঞ্জ রিজার্ভ ফোর্সের (আরআরএফ) এসআই মোশাররফ হোসেন (৫৬), ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের পরিদর্শক রাজু আহম্মেদ এবং চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের হালিশহর থানায় কর্মরত কনস্টেবল মো. নেকবার হোসেন (৪২)।

ট্যাগ: bdnewshour24