banglanewspaper

বছরে ব্যক্তিগত তিন লাখ টাকার ওপরে আয় হলেই কর দিতে হবে ৫ শতাংশ- এমন প্রস্তাব করা হয়েছে ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট। ব্যক্তি পর্যায়ে এর কম আয়ে কোনো কর দিতে হবে না। তবে চলতি বছরের তুলনায় বেড়েছে, চলতি বছরে যা আছে আড়াই লাখ টাকা। 

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) বিকাল ৩টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল বাজেট পেশ করেন। 

করোনা ভাইরাস ও মুদ্রাস্ফীতির কারণে মানুষের আয় কমে যাওয়ায় এবারের বাজেটে ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের করমুক্ত আয়সীমা কিছুটা বাড়ানো হয়েছে বলে জানান অর্থমন্ত্রী।

বাজেটে বক্তৃতায় বলা হয়েছে, ব্যক্তির করমুক্ত আয়ের সীমা ৩ লাখ টাকার। এর পরবর্তী ১ লাখ টাকা পর্যন্ত মোট আয়ের ওপর কর ধরা হয়েছে ৫ শতাংশ। এর পরের ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত মোট আয়ের ওপর কর দিতে হবে ১০ শতাংশ। পরবর্তী ৪ লাখ টাকা পর্যন্ত মোট আয়ের ওপর কর ১৫ শতাংশ। পরবর্তী ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত মোট আয়ের ওপর কর ২০ শতাংশ। এর বেশি আয়ের ক্ষেত্রে মোট আয়ের ওপর কর ২৫ শতাংশ।

চলতি অর্থবছরের বাজেটে সাধারণ করদাতাদের ক্ষেত্রে আয়ের সীমা আড়াই লাখ টাকার পর প্রথম ৪ লাখ টাকার জন্য ১০ শতাংশ, পরবর্তী ৫ লাখ টাকার জন্য ১৫ শতাংশ, এর পরের ৬ লাখ টাকার জন্য ২০ শতাংশ, আর পরবর্তী ৩০ লাখ টাকা পর্যন্ত মোট আয়ের ওপর ২৫ শতাংশ এবং অবশিষ্ট মোট আয়ের ওপর ৩০ শতাংশ হারে কর দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়।

এবারের বাজেটে পুরুষ করদাতাদের করমুক্ত আয়সীমা দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে তিন লাখ টাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। নারী ও ৬৫ বছরের বেশি বয়সী করদাতাদের করমুক্ত আয়সীমা তিন লাখ থেকে বাড়িয়ে তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা করা হয়েছে। প্রত্যক্ষ করদাতার সংখ্যা বাড়াতে দীর্ঘদিন এই আয় সীমা বাড়ায়নি সরকার।

ট্যাগ: bdnewshour24