banglanewspaper

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি সংকটের শুরু থেকে ভুল ধরিয়ে দেয়ার নামে সরকারের অন্ধ সমালোচনা আর নেতিবাচক বক্তব্যের চর্বিত চর্বন করে যাচ্ছে। দেশ-জাতি তথা অসহায় মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে মিথ্যাচার ও গুজব ছড়ানোকেই তারা পবিত্র দায়িত্ব হিসেবে মেনে নিয়েছে ‘ 

বুধবার (১৭ জুন) এক ভিডিও বার্তা তিনি এসব কথা বলেন।  

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির এ মিথ্যাচার ফ্রন্টলাইনের কর্মরত যোদ্ধাদের মনোবল নষ্ট করার অপপ্রয়াস। করোনার মতো বৈশ্বিক মহামারি মোকাবিলায় দেশরত্ন শেখ হাসিনা সরকারের উদ্যোগগুলো তাদের চোখে পড়ে না। ধুলো জমা, মরচে ধরা চশমা সরিয়ে সঙ্কটে মানুষের পাশে দাঁড়াতে এবং সরকারের কার্যক্রমে সহযোগিতা প্রদানে বিএনপির প্রতি আমি আবারও আহ্বান জানাচ্ছি।’ 

তিনি বলেন, ‘সরকার সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও নিরলস কাজ করে যাচ্ছে দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। একদিকে জীবন অন্যদিকে কর্ম। একদিকে জননিরাপত্তা অপরদিকে অর্থনীতির ভারসাম্য। একদিকে বেঁচে থাকার জন্য পরিকল্পনা, অপরদিকে দেশ-বিদেশের সাথে সংযোগ রক্ষা, জীবনের অনিবার্য প্রয়োজন।’ 

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘কিছু কিছু মতিমহল অবহেলা করছে, অসহযোগিতা করছে এবং অন্ধকারের পথ বেছে নিচ্ছে। সরকার নতুন করে সংক্রমিত এলাকা ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে, রেড, ইয়েলো এবং গ্রিন জোন করতে যাচ্ছে। সঠিক সমন্বয়ের ওপর নির্ভর করবে কার্যকর ফল। পাশাপাশি চিকিৎসা সরঞ্জাম বৃদ্ধি, টেস্টিং সেন্টারের সংখ্যা বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে এবং সব ধরনের সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছে।’

নমুনা পরীক্ষা নিয়ে একটি অসাধু চক্র সক্রিয়, তাদের এই অপপ্রয়াসের বিরুদ্ধে শুরুতেই কঠোরহাতে নিয়ন্ত্রণ করতে  আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিও  আহবান জানান ওবায়দুল কাদের। 

পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ‘দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা সরকারের অবস্থান স্পষ্ট। অনিয়মকারীদের দলীয় পরিচয় যাই হোক না কেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কোনও প্রশ্রয় নেই। ত্রাণ নিয়ে অনিয়মের অভিযোগে যেমনি কঠোরভাবে শাস্তি দেয়া হয়েছে তেমনি চিকিৎসা সরঞ্জাম অনিয়মের বিরুদ্ধেও সরকার শূন্য সহিষ্ণুতা বজায় রাখবে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে আমরা লক্ষ্য করছি, করোনা সংক্রমণ ও বিস্তার এখন উচ্চ মাত্রায় পৌঁছে গেছে। প্রতিদিনই সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দক্ষিণ এশিয়া ও আমেরিকায় নতুন করে উচ্চমাত্রার সংক্রমণে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে, করেছে সতর্ক। চীনে নতুন করে উচ্চ সংক্রমণ দেখা দিয়েছে।’ 

‘এ বাস্তবতায় নিজের পাহারাদার নিজে না হলে, এ উদাসীনতা থেকে আমাদের কে মুক্ত করবে। এখনও ভিড়ে, বাজারে, কর্মস্থলে অনেকে মাস্ক পরেন না। সংক্রমণ গোপন করে চলাফেরা করছেন। এ শৈথিল্য, এই অবহেলা সর্বগ্রাসী করোনার কাছে নিজেকে এবং আমাদের আশপাশের সবাইকে নিয়ে আত্মসমর্পণের সামিল’- যোগ করেন কাদের। 

তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদফতর, সিটি করপোরেশন, ডিএমপিসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাঝে সুসমন্বয় গড়ে তুলতে হবে। আমাদের অবহেলার আর সময় নেই। সরকারের নতুন সিদ্ধান্ত দ্রুত কার্যকরভাবে বাস্তবায়নের মাধ্যমে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি। রাজধানী থেকে তৃণমূল পর্যন্ত গড়ে তুলতে হবে কার্যকর সমন্বয়, সুরক্ষার দুর্ভেদ্য প্রাচীর।’ 

ট্যাগ: bdnewshour24