banglanewspaper

করোনা ভাইরাস আসার পর থেকেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট একেকবার একেক বক্তব্য দিয়ে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন। এবার কোনো প্রমাণ বা তথ্য-উপাত্ত ছাড়াই করোনা নিযে ট্রাম্পর বিতর্কিত মন্তব্য, যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসের ৯৯ শতাংশ ঘটনাই ‘কোনো ক্ষতিকর নয়’। মহামারি মোকাবিলায় ট্রাম্প প্রশাসন যখন তীব্র সমালোচনার মুখে তখনই ট্রাম্প এই কথা বলেন। 

গত শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে হোয়াইট হাউসে দেওয়া এক ভাষণে তিনি আরও বলেন, করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার জন্য চীনকে ‘অবশ্যই জবাবদিহি’ করতে হবে। প্রথম থেকেই অবশ্য তিনি চীনের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে আসছেন।

এদিন আবারও যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড নিহত হওয়ার প্রতিবাদে গড়ে ওঠা বর্ণবৈষম্য আন্দোলনের নেতাদের ‘উগ্র বাম’ তকমা দিয়েছেন ট্রাম্প। একইসঙ্গে তাদের পরাজিত করারও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে হোয়াইট হাউসে দেওয়া ভাষণে তিনি প্রতিশ্রুতি দেন।

ট্রাম্পের ভাষণে যুক্তরাষ্ট্রের ঐতিহাসিক বিভিন্ন স্মারক ও ভাস্কর্য উচ্ছেদের বিষয়টি বেশ গুরুত্বের সঙ্গে এসেছে। তিনি এসব ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে একে যুক্তরাষ্ট্রকে ধ্বংসের চেষ্টা হিসেবে অভিহিত করেন।

হোয়াইট হাউসে দাঁড়িয়ে ট্রাম্প যখন ভাষণ দিচ্ছিলেন, তখন তার কয়েক গজ দূরে হাউসের সামনের ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার প্লাজা ও পাশের লিংকন মেমোরিয়ালের আশপাশের সড়কগুলোতে অবস্থান নিয়ে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছিলেন বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনকারীরা।

ট্যাগ: bdnewshour24