banglanewspaper

করোনা টেস্ট না করে ফলাফল দেওয়াসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে বন্ধ হওয়া রাজধানীর রিজেন্ট হাসপাতালের মালিকের অন্যতম সহযোগী তরিকুল ইসলাম ওরফে তারেক শিবলীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। 

বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) রাজধানীর নাখালপাড়া থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ। 

তিনি বলেন, রিজেন্ট হাসপাতালের অনিয়ম ও প্রতারণার ঘটনায় মালিক শাহেদের সহযোগী তরিকুল ইসলাম ওরফে তারেক শিবলীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। র‌্যাবের করা মামলায় শিবলী অন্যতম আসামি। তার কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। পরে বিস্তারিত জানানো যাবে।

করোনাভাইরাস পরীক্ষা না করেই ভুয়া রিপোর্ট দেয়া, নিয়ম বহির্ভূতভাবে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা আদায় এবং মেয়াদপূর্তির পরও লাইসেন্স নবায়ন না করার অভিযোগ ওঠে রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে। এমন অভিযোগের সত্যতা পেয়ে বন্ধ করে দেয়া হয় বেসরকারি রিজেন্ট হাসপাতাল।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর মঙ্গলবার ওই হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখা বন্ধের নির্দেশ দেয়। এরপর সেদিন সন্ধ্যায় উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর সড়কে রিজেন্ট হাসপাতালের শাখাটি সিলগালা করে দেয় র‌্যাব। এরপর বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে হাসপাতালটির বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার রাতে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করে র‌্যাব।

মামলায় প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. শাহেদসহ ১৭ জনকে আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে রিজেন্ট চেয়ারম্যান শাহেদসহ নয়জনকে পলাতক হিসেবে এজাহারে দেখানো হয়। সেই মামলায় গ্রেফতার হলো শাহেদের সহযোগীকে।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. শাহেদ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাসুদ পারভেজ, হাসপাতালের অ্যাডমিন আহসান হাবীব, এক্সরে টেকনিশিয়ান হাসান, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট হাকিম আলী, রিসিপশনিস্ট কামরুল ইসলাম, রিজেন্ট গ্রুপের প্রজেক্ট অ্যাডমিন রাকিবুল ইসলাম, রিজেন্ট গ্রুপের এইচআর অ্যাডমিন অমিত অনিক, গাড়িচালক আব্দুস সালাম, এক্সিকিউটিভ অফিসার আব্দুর রশীদ খান জুয়েল, হাসপাতাল কর্মচারী তরিকুল ইসলাম, স্টাফ আব্দুর রশিদ খান, স্টাফ শিমুল পারভেজ, কর্মচারী দীপায়ন বসু এবং মাহবুব।

ট্যাগ: bdnewshour24