banglanewspaper

চীনের ”অবিশ্বাস্য আগ্রাসী” কাজের যোগ্য জবাব দেওযার জন্য ভারত যথাসাধ্য করেছে বলে মন্তব্য করলেন মার্কিন স্বরাষ্ট্র সচীব মাইক পম্পেও। বেইজিং সমস্ত জায়গাতেই সীমান্ত নিয়ে বিরোধ বাঁধিয়ে রাখে এবং পৃথিবীর বাকি সকলের এই পেশী আস্ফালন চুপ করে বসে দেখা উচীত নয় বলে অভিমত প্রকাশ করেন মার্কিন স্বরাষ্ট্রসচীব। 

”আমি একাধিকবার (ভারতের) পররাষ্ট্র মন্ত্রী (এস) জয়শঙ্করের সঙ্গে কথা বলেছি। চীন অবিশ্বাস্য আগ্রাসী ভূমিকা পালন করেছে। ভারত যথাযথ প্রতিক্রিয়া জানানোর জন্য যথাসাধ্য করেছে।”

পূর্ব লাদাখে ভারতের সীমানায় চীনের অনুপ্রবেশ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মাইক পম্পেও বলেন, ”আমি এই প্রসঙ্গে (চীনের) গোটা এলাকায় এবং অবশ্যই গোটা পৃথিবী জুড়ে জেনারেল সেক্রেটারি শি জিনপিং এবং তার আচরণের উল্লেখ করতে চাই।” 

তিনি আরও বলেন, ”আমি মনে করি না এই একটি নির্দিষ্ট ঘটনায় বিচ্ছিন্ন ভাবে চীনের কমিউনিস্ট পার্টির আগ্রাসী নীতিকে বোঝা যাবে, এটা বুঝতে গেলে বড় প্রেক্ষিতে (ঘটনাটিকে) রেখে বিচার করতে হবে।”

চীনা কমিউনিস্ট পার্টি সম্প্রতি ভূটানের একটি বনাঞ্চল দাবি করে বসেছে। ভূটানের তরফ থেকে যদিও বলে হয়েছে চীনের সঙ্গে ভূটানের সীমারেখা নিয়ে কিছুটা অস্বচ্ছতা রয়েছে, কিন্তু এই অভয়ারণ্যটির দাবি চীন এতদিন করেনি। অরুণাচল প্রদেশের লাগোয়া অরণ্যভূমি দাবি করাটা চীনা আগ্রাসনের বৃহত্তর কোনও পরিকল্পনার সূচনা কিনা সে দিকে নজর রাখছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কারণ অরুণাচল প্রদেশের দাবি চীন আগেও তুলেছে। 

যদিও ভুটান–চীন দ্বন্দ্বে ভারত জড়াবে না জানিয়ে দিয়েছে। তাছাড়া, নাম না করে প্রথমেই বেইজিং থেকে ভারতকে সতর্ক করে বলা হয়েছিল ভুটান–চীন সীমান্ত বিরোধে কোনও তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না।

ট্যাগ: bdnewshour24