banglanewspaper

করোনাভাইরাসের ভুয়া টেস্টে বিপুল টাকা হাতিয়ে নেয়ায় অভিযুক্ত রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদুল করিম সাহেদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালকে ফোন করেছিলেন। তিনি তদবিরের চেষ্টা করেন। তবে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। শাহেদের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ক্ষুব্ধ বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

শুক্রবার (১০ জুলাই) রাজধানীতে নিজ বাস ভবনে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তার কাজের জন্য শাস্তি তাকে পেতেই হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী খুঁজছে তাকে। তবে তারও উচিত আত্মসমর্পণ করা।

রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক মোহাম্মদ শাহেদুল করিম শাহেদ জালিয়াতির অভিযোগ এখন পলাতক রয়েছে। আত্মগোপনে থাকা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে তালিকাভুক্ত এই প্রতারকের বিরুদ্ধে অভিযোগ বিস্তর। এ অবস্থায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, শাহেদ যেখানেই থাকুক পার পাবে না।

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযানের পর ফোন করে শাহেদ তদবির করারও চেষ্টা করেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সে আমাকে বললো আমার ওটা তো সিল করছে। জবাবে বলেছিলাম, আমি তো জানি না। কেন সিল করছে? কেন সিল করছে? নিশ্চয়ই আপনি কিছু করেছেন। শাহেদ বলেছিল, আমাকে অ্যারেস্ট করলে? তখন বলেছি, সেটাও আমি কিছু বলতে পারব না। এরপর শাহেদ আর কোনো যোগাযোগ করেনি বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, গতকাল প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এগুলো কী? কেমনে, কী করে? জবাবে আমি বলেছি, আমি তো জানি না। একদিন দেখলাম দুটি হাসপাতাল কোভিডের জন্য উৎসর্গ করেছে।

আমার কাছে সে একদিন বুক ফুলিয়ে কথা বলল। আমি বললাম, আমি তাহলে রোগী পাঠব। রোগী পাঠিয়েছি। কতজন ভালো হয়ে আসছে, তপন নামে আমাদের এক নেতা মারা গেছেন।

রিজেন্ট হাসপাতাল থেকে কোভিড-১৯ এর ভুয়া প্রতিবেদন দেওয়া নিয়ে তিনি বলেন, এগুলো প্রমাণিত হলে তাকে শাস্তি পেতেই হবে।

ট্যাগ: bdnewshour24