banglanewspaper

মহেন্দ্র সিং ধোনির মত বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক নন তিনি। তবে তিনি বাংলাদেশের অধিনায়ক। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ইতিহাস-পরিসংখ্যানকে মানদণ্ড ধরলে আহামরি কিছু মনে হবে না হয়তো। সাকুল্যে দুটি ওয়ানডে খেলেছেন মাত্র। রান মোটে ১৭। তবে এই জীর্ণ পরিসংখ্যান দিয়ে রকিবুল হাসানকে বিচার করলে চলবে না।

তিনি যখন ১৯৮৬ সালে দেশের হয়ে শ্রীলঙ্কার মাটিতে প্রথম ওয়ানডে খেলেন তখন তার বয়স ৩৬ প্লাস। মধ্য তিরিশ পার হওয়া তখনকার রকিবুল হাসান যে ছিলেন ক্যারিয়ারের স্বর্ণ সময়ের ছায়া!

কাজেই ওই সময়ের পারফরমেন্স দিয়েই শুধু রকিবুল হাসানকে বিচার করা ভুল হবে। ব্যাটসম্যান রকিবুল হাসান তার পরিসংখ্যানের চেয়ে অনেক বড়। গাণিতিক ও ব্যাকরণ সম্মত ব্যাটিং শৈলি, পরিপাটি টেকনিক, টেম্পারামেন্ট আর কভার ড্রাইভ, স্কোয়ার ড্রাইভ, স্কোয়ার কাট, পুল ও হুক শটের ওপর নিয়ন্ত্রণকে বিবেচনায় আনলে- বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সব সময়ের অন্যতম সেরা উইলোবাজদের তালিকায় রকিবুল হাসানের নাম থাকবেই।

এছাড়া তিনি দেশের ক্রিকেটের প্রথম দিককার অন্যতম সেনাপতি। শামিম কবিরের পর জাতীয় দলের দ্বিতীয় অধিনায়ক; কিন্তু সেটাও তার ক্রিকেটীয় কর্মকান্ড ও ক্যারিয়ারকে মূল্যায়নের পরিপূর্ণ মাপকাঠি নয়। আসল মাপকাঠি হলো তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা। দেশ মাতৃকার স্বাধীকার আন্দোলনের এক অকুতোভয় সৈনিক।

যিনি ১৯৭১ সালের সেউ উত্তাল দিনগুলোতে বাংলাদেশের মানুষের স্বাধীকার আন্দোলনের প্রতীক ‘জয়বাংলা’ স্টিকার লাগানো ব্যাট নিয়ে তদানিন্তন পাকিস্তান জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক একাদশের বিপক্ষে এক আন্তর্জাতিক ম্যাচে ব্যাট করতে নেমেছিলেন।

১৯৭১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের সাথে ‘ইন্টারন্যাশনাল ইলেভেনের’ দু’দিন ব্যাপী ম্যাচে ব্যাটে জয় বাংলা স্টিকার লাগিয়ে রীতিমত সাড়া জাগিয়ে বসেন তখনকার ১৮ বছরের যুবা রকিবুল। বঙ্গবন্ধু তনয় ও বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে নতুনের আবাহন নিয়ে আসা আবাহনীর প্রতিষ্ঠাতা শেখ কামাল নিজে তার ব্যাটে জয়বাংলা স্টিকার লগিয়ে দিয়েছিলেন।

কাজেই দেশ মাতৃকার স্বাধীনতা আন্দোলনের সাহসী যোদ্ধা রকিবুল হাসান যে ব্যাটসম্যান এবং ক্রিকেটার রকিবুলের চেয়েও অনেক বড়! খুশির খবর হলো, সেই ক্রিকেটার ও মুক্তিযোদ্ধা রকিবুল হাসানের জীবনী নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মিত হচ্ছে এবার।

তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতা বান্টি আফজাল এ ছবিটি নির্মাণ করবেন। প্রযোজনায় থাকবেন রুমান শারমিন স্বাতী। আর কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখবেন ক্রীড়া সাংবাদিক, ঔপন্যাসিক দেবব্রত মুখোপাধ্যয়।

আজ নির্মাতাদের সাথে রকিবুল হাসানের আনুষ্ঠানিক কথা-বার্তা পাকা হয়ে গেছে। চুক্তিও সম্পন্ন হয়েছে। রবিবার বিকেলে  এ তথ্য জানিয়ে রকিবুল হাসান বলেন, ‘ভিতরে ভিতরে কথা-বার্তা চলছিল। তবে আমিও বিষয়টি একটু খুঁটিয়ে দেখে নিলাম। আসলে কি হবে, নির্মাতাদের ভাবনা কি? তারা আসলে কি করতে চাচ্ছেন এবং সেটা কিসের ভিত্তিতে? এসব জেনে-বুঝে নিয়েই আমি চুক্তি করেছি।’

সঙ্গে রকিবুল যোগ করেন, ‘প্রস্তাবটা আসছে আগেই। তবে আসল কথা হলো, আমার জীবনী নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে হলে তো আমার অনুমতি দরকার, আমি সে অনুমতি দিয়ে দিয়েছি। আমি সব বিষয় খুঁটিয়ে দেখে আজই সব ফাইনাল করে ফেলেছি। বলেছি ঠিক আছে, করো। তবে বলে দিয়েছি, সত্যকে প্রতিষ্ঠিত করা হবে মূল কাজ। কোন অসত্য যেন উঠে না আসে। ছবিটি যেন সত্য ঘটনার উপর ভিত্তি করে হয়। এ কাহিনীর প্রয়োজনে হয়ত কিছু কাল্পনিক বিষয় হয়ত আসবে, সেটা ছবি করতে গেলে আসে। 

এখানে তো আর আমি অভিনয় করবো না। আমার জীবনের বিভিন্ন ধাপে বিভিন্ন সময়ের সাথে মিল রেখে অভিনয় শিল্পী মনোনয়ন করা হবে। রকিবুল হাসানকেই দেখানো হবে। এ ভাবেই চিন্তা ভাবনা করছে তারা।’

রকিবুলের শেষ কথা হলো, ‘আমাকে দিন পনেরো আগেই বিষয়টি জানানো হয়েছিল। আমি সময় নিলাম। দেখলাম কি করতে চাচ্ছে? আমার বা দেশের প্রতি তার অবদানের ওপর ভিত্তি করে যদি কোন ছবি নির্মাণ করা হয়, সেটা একটা বিশাল প্রাপ্তি ও স্বীকৃতি। সে দিক থেকে চিন্তা করেই আমার হ্যাঁ বলা। সন্মতি দেয়া। আমি শুধু আশা করবো, ছবিটি যেন শেষ পর্যন্ত নির্মিত হয়। কারণ, বাংলাদেশে অনেক ভাল উদ্যোগই নেয়া হয়, এরপরে কোন না কোনোভাবে তার কিছু কিছু মাঝ পথে থেমে যায়। এ উদ্যোগ যেন তেমন মাঝ পথে না থামে। যেন শেষ হয়। সেটাই আমার প্রত্যাশা।’

প্রসঙ্গতঃ ভারতসহ বিভিন্ন দেশে ক্রীড়াবীদদের নিয়ে জীবনীভিত্তিক চলচ্চিত্র নির্মাণ হলেও বাংলাদেশে এখনও তেমন কোনো চলচ্চিত্র নির্মাণ হয়নি। রকিবুল হাসানের এটা নির্মিত হলে, সেটা হবে এই দেশে প্রথম ক্রীড়াবিদকে নিয়ে নির্মান হওয়া প্রথম চলচ্চিত্র।

ট্যাগ: bdnewshour24