banglanewspaper

করোনার চিকিৎসায় রিজেন্ট হাসপাতালকে অনুমোদন দেয়া নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদফতর পরস্পর দোষারোপ করে আসছে। অধিদফতরের মহাপরিচালকের বক্তব্যের ব্যাখ্যাও চেয়েছে মন্ত্রণালয়।

তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলছেন, স্বাস্থ্য অধিদফতরের সঙ্গে মন্ত্রণালয়ের কোনো সমস্যা নেই । তিনি বলেন, জেকেজি-রিজেন্ট হাসপাতাল সংশ্লিষ্টদের প্রশ্রয়দানকারীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে।

মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) দুপুরে সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য অধিদফতরের সঙ্গে মন্ত্রণালয়ের কোনো সমস্যা নেই।স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে মন্ত্রণালয় প্রশাসনিকভাবে কোনো কাজের ব্যাখ্যা চাইতেই পারে, এটি সরকারি কাজের একটি অংশ।

জাহিদ মালেক বলেন,জেকেজি ও রিজেন্ট হাসপাতালের অনৈতিক কর্মকাণ্ড কতটুকু হয়েছে তা সরকার খতিয়ে দেখছে। দোষী সাব্যস্ত হলে তাদের কঠোর বিচার করতে হবে এবং তাদেরকে প্রশ্রয়দানকারীদের বিরুদ্ধেও দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, অধিদফতর ও মন্ত্রণালয় দুটিই সরকারের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। দুটি প্রতিষ্ঠানই বর্তমানে কভিড-১৯ এর দুর্যোগ মোকাবেলায় দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, জেকেজি ও রিজেন্ট হাসপাতালের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডের ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিতে মন্ত্রণালয় থেকে অধিদফতরকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। এটি সরকারের প্রশাসনিক ও দাপ্তরিক কাজের একটি অংশ মাত্র। মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের সমস্যার কোনো ব্যাপার এটি নয়।

ব্রিফিং শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নান ও স্বাস্থ্যশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলী নূরের সঙ্গে আলাদা বৈঠক করেন।

বৈঠকে সচিবদের দেশের সকল ক্লিনিক ও হাসপাতালে সাধারণ মানুষ সেবা বঞ্চিত হচ্ছে কিনা সে ব্যাপারে তৎপর থাকার নির্দেশ দেন তিনি। পাশাপাশি কোনো ক্লিনিক ও হাসপাতালে অনৈতিক কোনো কর্মকাণ্ড হলে দ্রুততার সঙ্গে জোরালো ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। 

ট্যাগ: bdnewshour24