banglanewspaper

লোকে বলত, তাকে একেবারে তার নানার মতো দেখতে। চোখ, নাক, হাঁটাচলার ধরণ, সবই ছিল তার কিংবদন্তি নানার মতো। ‘কিং অফ রক অ্যান্ড রোল’সেই একমাত্র নাতি বেঞ্জামিন কিওঘ মাত্র ২৭ বছর বয়সে প্রয়াত হলেন।

জানা গিয়েছে, আত্মহত্যা করেছেন তিনি। এলভিস প্রেসলির মেয়ে লিজা মেরি প্রেসলির ম্যানেজার বেঞ্জামিনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, লস অ্যাঞ্জেলসের কাছে কালাবাসাসে গুলি করে আত্মহত্যা করেছেন বেঞ্জামিন। ছেলের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন মা।

নানার মতোই রক মিউজিক নিয়ে সারাদিন মেতে থাকতেন বেঞ্জামিন। তবে নিজেকে গুটিয়ে রাখতেন। নিজেকে আড়াল করে রাখতেই বেশি ভালবাসতেন তিনি। কারও সঙ্গে মেলামেশা করতেন না তেমন। পাবলিক প্ল্যাটফর্মে তার ছবি রয়েছে হাতে গোনা।

সেগুলি দেখে যে কেউ বলবেন, তিনি একেবারে নানা প্রেসলির মতোই দেখতে ছিলেন। পারিবারিক সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, আবসাদগ্রস্থ হয়েই আত্মহত্যা করেছেন প্রেসলির নাতি। তবে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

১৯৭৭ সালে মাত্র ৪২ বছর বয়সে মারা গিয়েছিলেন বিংশ শতাব্দীর অন্যতম কিংবদন্তি এলভিস প্রেসলি। ২০১৭ সালে এলভিস প্রেসলির ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তার শহর গ্রেসল্যান্ডে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে সপরিবারে দেখা গিয়েছিল বেঞ্জামিনকে। তবে আমন্ত্রণ পেলেও অনুষ্ঠানে যাওয়ার ব্যাপারে অনীহা ছিল বেঞ্জামিনের।

বাবার সঙ্গে ছেলের চেহারার সাদৃশ্যকে বরাবর কাকতালীয় বলে উল্লেখ করেছেন মেরি প্রেসলি। নানার সঙ্গে খুব একটা সময় কাটানোর সুযোগ না পেলেও বেঞ্জামিন তার পথ অনুসরণ করেছিলেন। কিন্তু নানার লেগাসি আর বেশিদিন এগিয়ে নিয়ে যেতে পারলেন না তিনি।

ট্যাগ: bdnewshour24