banglanewspaper

করোনা পরবর্তী ক্রিকেটে সাবধানতা থাকবেই। কিন্তু সফরকারি দলকে এ কেমন আতিথেয়তা দিচ্ছে ইংল্যান্ড? তিনটি করে টেস্ট আর টি-টোয়েন্টি খেলতে চলতি মাসের শুরুতে ইংল্যান্ডে গেছে পাকিস্তান জাতীয় দল। সেখানে রীতিমত অস্বস্তিকর অবস্থায় ফেলে দেয়া হয়েছে তাদের।

ক্রিকেটাররা যে কোনো সফরে গেলে সাধারণত বিলাসবহুল পাঁচ তারকা হোটেল পান, যেখানে থাকে সুইমিংপুলসহ নানা ধরনের সুযোগ সুবিধা। কিন্তু পাকিস্তানের বেলায় হয়েছে অন্যরকম। পাঁচতারকা তো দূরের কথা, চার তারকা হোটেলও দেয়া হয়নি সফরকারি দলকে। সাধারণ মানের তিন তারকা হোটেলের ব্যবস্থা করা হয়েছে, যাতে করে করোনার এই সময়টায় 'বায়ো-সিকিউর' পরিবেশ নিশ্চিত করা যায়।

ইংল্যান্ডে পা রাখার পর নিয়ম অনুযায়ী পাকিস্তান দলকে ১৪ দিনের আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। ক্রিকেট পাকিস্তানের প্রতিবেদনে এসেছে, ওরচেস্টারে এই আইসোলেশন পিরিয়ডটা সফরকারি দলকে কাটাতে হচ্ছে তিন তারকা হোটেলে।

শুধু তাই নয়, খাবারের জন্যও কোনো ক্রিকেটারকে বাইরে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। আলাদা আলাদা রুমে তাদের জন্য আলাদা আলাদা করে খাবার পাঠানো হচ্ছে। ফলে একসঙ্গে বসে খেতেও পারছেন না বাবর আজম-আজহার আলিরা।

তবে চলতি সপ্তাহে ডার্বিতে যাওয়ার পর এই বন্দিদশা থেকে কিছুটা মুক্তি মিলবে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের। ডার্বিতেও অবশ্য ট্রাভেলজ নামের একটি তিন তারকা হোটেলেই থাকতে হবে তাদের। তবে সেখানে একসঙ্গে খেলোয়াড়রা খেতে পারবেন। কেননা ট্রাভেলজে ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফ ছাড়া বাইরের কোনো অতিথি থাকবেন না।

সেখানে নিজেদের মধ্যে ইনডোর খেলাগুলো খেলতে পারবেন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা। তবে সেটা যার যার রুমের মধ্যে। ডার্বিতে ৩০ জুলাই পর্যন্ত অবস্থান করবে পাকিস্তান দল। সেইসঙ্গে সেখানে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে দুটি চারদিনের ম্যাচ খেলবে তারা। প্রথম ম্যাচটি ১৭ থেকে ২০ জুলাই, দ্বিতীয়টি শুরু হবে ২৪ জুলাই থেকে।

এরপর মূল সিরিজ শুরু সিরিজের প্রথম টেস্ট দিয়ে। যেটি মাঠে গড়াবে ৫ আগস্ট। টেস্ট সিরিজ শেষে টি-টোয়েন্টি শুরু হবে ২৮ আগস্ট থেকে। আজহার আলি টেস্ট দল আর বাবর আজম টি-টোয়েন্টি দলকে নেতৃত্ব দেবেন।

ট্যাগ: bdnewshour24