banglanewspaper

চলচ্চিত্রের স্বার্থবিরোধী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ এনে গত ১৩ জুলাই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠিয়েছিল। 

আর গত বুধবার চলচ্চিত্রের ১৮ সংগঠন মিলে জায়েদ খানকে ‘বয়কট’ করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়, যা সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানানো হয়েছে।

কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানোর ঠিক তিন দিনের মাথায় সংগঠনগুলোর এমন সিদ্ধান্তে অবাক হয়েছেন জায়েদ খান। তিনি বয়কটের সিদ্ধান্তকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে আখ্যা দিয়েছেন।

জায়েদ খান বলেন, ‘ব্যক্তি জায়েদ খানকে কেন তারা বয়কট করল। আমাকে তারা যে চিঠি পাঠিয়েছে- সেখানে বলা হয়েছে, সাত দিনের মধ্যে জবাব দিতে। তার আগেই কেন আমাকে বয়কট করা হলো। তারা আবার বলছে, এটা ১৭ সংগঠন করেছে। এর মধ্যে কি প্রযোজক সমিতি নাই? আর যদি তারাসহ সবাই বয়কট করে থা‌কে, তাহলে সেই চিঠির মূল্যই বা কী? তাহলে কেন আমাকে চিঠি পাঠানো হলো। এগুলো সবই নাটক।’

শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ বলেন, ‘গত কয়েক বছরে আমি শিল্পীদের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়েও শিল্পী ও দুস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। দায়িত্ব নেওয়ার পর আমি শিল্পীদের জন্য কাজ করেছি। কোনো অসৎ কাজ করিনি। এই বিষয়গুলোও তারা নিতে পারছে না। তাদের জ্বলছে।’

চিত্রনায়ক জায়েদ খান বলেন, ‘হঠাৎ কেন মিশা-জায়েদকে বয়কট। কোনো কিছু করলে সংগঠন করেছে। বয়কট করলে সংগঠনকে করুন। যে এসএমএস পাঠানোর কথা বলা হচ্ছে, সেখা‌নে কোথাও কি জায়দ-মিশার নাম লেখা ছিল। লেখা ছিল, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। তাহলে আমাকে কেন বয়কট? এগুলো উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। আজ রোববার আমরা একটি সংবাদ সম্মেলন করব, সেখানে সবকিছু তুলে ধরবো।’

আপনার বিরুদ্ধে আরও একটি অভিযোগ- আপনি অন্যদের সম্মান দেন না। হেয় করে কথা বলেন। এমন প্রশ্নে তিনি জায়েদ খান বলেন, ‘মানুষ মুখে বলার সময় অনেক কথাই বলে। শুধু মুখে বললে হবে না। অভিযোগের প্রমাণ দিক, অভিযোগ তোলা সহজ। আমি কারও সঙ্গে কখনো বেয়দবি বা অসম্মানসূচক কোনো কথা বলিনি।’

ট্যাগ: bdnewshour24