banglanewspaper

প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ ও তার স্ত্রী আসমার অংশ গ্রহণের মধ্য দিয়ে সুদীর্ঘ নয় বছর ধরে যুদ্ধে লিপ্ত সিরিয়ায় তৃতীয় সংসদ নির্বাচনে রবিবার ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পার্লামেন্টে ২৫০ আসনে এক হাজার ৬৫৬ জন প্রার্থীকে ভোটারদের ভোট প্রদানের লক্ষ্যে রবিবার সেখানে সরকার নিয়ন্ত্রিত এলাকা জুড়ে মোট ৭ হাজার ২৭৭ টি ভোট কেন্দ্র খোলা হয়।

প্রেসিডেন্ট ও তার স্ত্রী উভয়কেই প্রেসিডেন্সিয়াল অ্যাফেয়ার্স মিনিস্ট্রির একটি ভোট কেন্দ্রে মাস্ক পরিহিত অবস্থায় ভোট দিতে দেখা গেছে।

সিরিয়ায় প্রায় ৭০ শতাংশ অঞ্চল বর্তমানে সরকারি নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিম ইদলিব প্রদেশ উগ্রবাদী বিদ্রোহীদের এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চল মার্কিন-সমর্থিত কুর্দি মিলিশিয়া বাহিনী ‘সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস (এসডিএফ)-এর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

টানা ২০ বছর ধরে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাসার-আল-আসাদ। ভোটের লড়াইয়ে নাম লেখায়নি বেশিরভাগ বিরোধী দল। তাই এবারেও পাল্লা ভারী আসাদের। এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।  ২০১১ সালের গৃহযুদ্ধের পর এটি তৃতীয় জাতীয় নির্বাচন।

৪ বছর অন্তর নির্বাচন হয় সিরিয়ায়। শেষ নির্বাচন হয়েছিল ২০১৬ সালে। ২৫০ আসন বিশিষ্ট সিরিয়ার পার্লামেন্টে ২০০টি আসন পায় ন্যাশনাল প্রোগ্রেসিভ ফ্রন্ট। যার মধ্যে আসাদের দল আরব সোশ্য়ালিস্ট বাথ পার্টি ১৭২টি। বাকি ৫০ নির্দলের ঝুলিতে। যদিও নির্বাচনের এই ফলাফলকে স্বীকৃতি দেয়নি রাষ্ট্রসংঘ।

এবছর ৩ মার্চ প্রেসিডেন্ট বাসার-আল-আসাদ ডিক্রি জারি করে নির্দেশ দিয়েছিলেন যে ২৫০ টি আসনের মধ্যে ১২৭ টি আসনে পদে বসবেন কৃষক ও শ্রমিকরা। বাকি ১২৩ টি আসনে ভিন্ন লোকেরা থাকবেন।

ট্যাগ: bdnewshour24