banglanewspaper

নভেল করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিনের তৃতীয় অর্থাৎ চূড়ান্ত ধাপের পরীক্ষার কাজ শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্রের বায়োটেকনোলজি কোম্পানি মডার্না ও ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথের গবেষকরা। তৃতীয় ধাপে ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবী এ পরীক্ষায় অংশ নেবে। 

এরইমধ্যে স্থানীয় সময় সোমবার সকালে প্রথম ব্যক্তি হিসেবে জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের এক বাসিন্দা এ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যে ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবী তৃতীয় ধাপের পরীক্ষায় অংশ নেবেন তাদের মধ্যে অর্ধেক স্বেচ্ছাসেবীদের এই ভ্যাকসিন দেয়া হবে। বাকি অর্ধেককে দেয়া হবে প্লাসেবো। যেকোনও ওষুধ বা টিকা পরীক্ষার সময় কার্যকারিতাহীন প্রতিলিপি অর্থাৎ প্লাসেবো ব্যবহার করা হয়।

এক্ষেত্রে কাদের শরীরে ভ্যাকসিন আর কাদের শরীরে প্লাসেবো প্রয়োগ করা হবে তা গবেষক ও স্বেচ্ছাসেবীদের কেউ জানতে পারবেন না। 

মার্কিন প্রেসিডেন্ড ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বাস্থ্য পরামর্শক ও ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিসের পরিচালক অ্যান্থনি ফউসি বলেছেন, ‘আমরা ভ্যাকসিনোলজির ইতিহাসে একটি ঐতিহাসিক ইভেন্টে অংশ নিতে যাচ্ছি।’

মডার্নার ভ্যাকসিন কার্যকর হবে কিনা তা নভেম্বর-ডিসেম্বরের মধ্যেই গবেষকরা বলতে সক্ষম হবেন বলে এর আগে জানিয়েছিলেন ফউসি। তিনি এ-ও বলেছিলেন, এমনও হতে পারে- নির্দিষ্ট সময়ের আগেই সেটি জানাতে পারেন গবেষকরা।

এর আগে ভ্যাকসিনটির দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষায় যে ৬০০ জন সুস্থ স্বেচ্ছাসেবী অংশ নিয়েছিলেন তাদের মধ্যে অর্ধেকের বয়স ছিল ১৮ থেকে ৫৫ বছরের মধ্যে। বাকিরা ছিল ৫৫ বছরের বেশি বয়সী।

ট্যাগ: bdnewshour24