banglanewspaper

আজ, ২৯ জুলাই ৬১ বছর পূর্ণ করলেন বলিউডের বেড বয় অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত। ব্যক্তিগত জীবন এবং ক্যারিয়ারের নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে দীর্ঘ ৩৮ বছরের বলিউড-ক্যারিয়ারে সাঞ্জু বাবা এখনো সমান জনপ্রিয়। তাহলে আজ সঞ্জের ৬০ তম জন্ম দিনে জেনে নেই কিছু অজানা তথ্য যা সঞ্জয়ের জীবনকে এত রোমাঞ্চকর, কৌতূহলপ্রদ করে তুলেছে সবার কাছে।

১. সঞ্জয় দারুণ তবলা বাজাতে পারেন। আমেরিকায় এক কনসার্টে সেরা এয়ার গিটারিস্ট হিসেবে সোনার মেডেল পান তিনি।

২. জেলে খাটাখাটনির পারিশ্রমিক হিসেবে ৪৫০ টাকা পান সঞ্জয়। জেল থেকে বেরিয়ে ওই টাকা তিনি তুলে দেন স্ত্রী মান্যতার হাতে।

৩. সুভাষ ঘাইয়ের সুপারহিট ছবি হিরো-র জন্য সঞ্জয়ই ছিলেন ফার্স্ট চয়েস। লামহে-তেও তাকেই প্রথমে বাছা হয়েছিল। কিন্তু মাদকের নেশার কারণে দুটি ছবি থেকেই বাদ পড়েন তিনি।

৪. সঞ্জয়ের নাইজিরীয় ভক্তরা তার নাম দিয়েছেন ড্যান বাবা মাই লাসিন। অর্থ, লাইসেন্স থাকা গুন্ডা।

৫. সঞ্জয়ের সঙ্গে রকি-তে তার নায়িকা টিনা মুনিমের রোম্যান্টিক সম্পর্ক ছিল। একবার সঞ্জয় নাকি ঋষি কাপুরকে এ জন্য মারতেও গিয়েছিলেন। তার সন্দেহ ছিল, ঋষির সঙ্গে টিনার সম্পর্ক রয়েছে।

৬. কিশোর বয়স থেকেই মাদক নিতেন সঞ্জয়। নিজেই স্বীকার করেছেন, এমন কোনও ড্রাগ নেই, যা তিনি পরখ করেননি। একবার এলএসডি-তে বুঁদ সঞ্জয় দেখেন, বাবা সুনীল দত্তের মাথা থেকে আগুন বার হচ্ছে। বাবার মুখ গলে যাবে ভয়ে তিনি আগুন নেভাতে তার ওপর লাফিয়ে পড়েন।

৭. যৌবনের বড় সময় মাদকে আচ্ছন্ন থেকেছেন সঞ্জয়। একবার নেশা কেটেছিল পাক্কা দু’দিন পর। সব কিছু হাতের বাইরে বেরিয়ে যাচ্ছে বুঝতে পেরে বাবাকে বলেন নিজের অসহায়তার কথা। বাবা তাকে আমেরিকায় রিহ্যাবে পাঠিয়ে দেন।

৮. নিজের শরীরকে ছবির ক্যানভাসের মত দেখেন সঞ্জয়। শরীরময় তার ট্যাটু। মা নার্গিসের নাম লেখা আছে বুকে, উর্দুতে। বাবা সুনীল দত্তের নাম দেবনাগরীতে।  শিব, আগুন নিঃশ্বাস নেওয়া ড্রাগন, জাপানিতে লেখা সম্মান, তিব্বতি শ্লোক, দু’জন সামুরাই যোদ্ধা, একটি বিশাল সিংহ- কী নেই তার শরীর জুড়ে!

৯.  ১৯৮১ সালে মুক্তি পায় সঞ্জয় দত্তর প্রথম ছবি ‘রকি’। কিন্তু জানেন কি, ১৯৭২-এ বাবা সুনীল দত্ত পরিচালিত ‘রেশমা অর শেরা’ ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয়ে হাতেখড়ি হয়েছিল তার।

১০. মাইগ্রেন অ্যাটাকের প্রবল সমস্যা থাকার কারণে সঞ্জয় দত্তকে ইলেকট্রনিক সিগারেট সঙ্গে রাখার অনুমতি দেয়া হয়।

এদিকে, কেজিএফ ছবির অনন্য সাফল্যের পর ছবিটির দ্বিতীয় অংশ কেজিএফ চাপ্টার ২ নিয়ে হাজির হতে চলেছেন নির্মাতারা। এবার আরও বড় মাপে তৈরি হয়েছে এই ছবি। ছবিটিতে প্রধান এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় দেখা যাবে সঞ্জয় দত্তকেই।

২০১৯ সালের ২৯ জুলাই, অর্থাত্‍ সঞ্জয় দত্তের ৬০তম  জন্মদিনেই আধিরার ফার্স্ট লুক প্রকাশ করেছিলেন প্রযোজক ফারহান আখতার। ঠিক এক বছর পর, ফের এই দিনটাকেই তিনি বেছে নিলেন সঞ্জয়ের নতুন লুকের পোস্টার।

সঞ্জয় দত্ত-ও তার সোশ্যাল মিডিয়ায় এই পোস্টার শেয়ার করে লিখেছেন, ‘এই ছবিতে কাজ করার অভিজ্ঞতা দারুণ। জন্মদিনে এর চেয়ে ভালো উপহার আর কীই বা হতে পারে। ধন্যবাদ কেজিএফ-এর গোটা টিমকে। আমার ভক্তদের জানাই বিশেষ ধন্যবাদ। আপনাদের ভালোবাসা আর সাপোর্ট ছাড়া আজ এই জায়গায় পৌঁছাতে পারতাম না।’

ট্যাগ: bdnewshour24