banglanewspaper

এমনিতেই ক্যানাবিডিওল ‌নামে গাঁজার উপাদান যেন নানারকম রোগ নিরাময়ে কাজে লাগে, সেটা আগে থেকেই প্রতিষ্ঠিত। এমনকী আগেও গবেষকরা বলেছেন, ক্যান্সার মোকাবিলা করতে ক্যানাবিডিওল ব্যবহার করা যেতে পারে। এটি ব্যবহার করে ওষুধ তৈরির চেষ্টাও চলছে। কিন্তু এখন গবেষকরা দাবি করেছেন, এই উপাদানে তৈরি বিশেষ স্ট্রেইন ক্যান্সার সেল ধ্বংস করে রোগীকে পুরোপুরি মুক্তি দিতে পারে। যা এক যুগান্তকারী আবিষ্কার বলা চলে।

অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অফ নিউক্যাসেলের গবেষক ম্যান ডান সম্প্রতি তিন বছরের দীর্ঘ এক গবেষণা শেষ করেছেন। সেই গবেষণায় তিনি দেখিয়েছেন, গাঁজার বিশেষ স্ট্রেইন শরীরে ক্যানসারের উপস্থিতি একেবারে নিশ্চিহ্ন করে দিতে পারে। 

কারণ, সেগুলি সরাসরি ক্যান্সার সেলগুলিকে হামলা করে। তবে শরীরে আর কোনও ক্ষতি না করেই এটি সারিয়ে তুলতে পারে রোগীকে। একটি প্রেস বিবৃতি জারি করে নিউক্যাসেল ইউনিভার্সিটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, রোগ নিরাময়কারী গাঁজা সরাসারি ক্যান্সার সেল ধ্বংস করার ক্ষমতা রাখে।

এই স্ট্রেইনের নাম দেওয়া হয়েছে ‘‌ইভ’‌। এই স্ট্রেইনে থাকে ১ শতাংশ “টিএইচএস’‌’‌, যে উপাদানটির জন্য গাঁজা খেলে নেশার ভাব তৈরি হয়, সেটি। ফলে এর মাধ্যমে শরীরের কোনও ক্ষতিসাধন হওয়াও সম্ভব নয়। এটি সাধারণ সমস্ত কোষের ক্ষতি না করেই ক্যান্সার সেলের ওপর প্রভাব বিস্তার করে সেগুলিকে নিষ্ক্রিয় করতে পারে।

গবেষকরা জানিয়েছেন, তাদের সাধারণ লিউকোমিয়া সেলের ওপর পরীক্ষা করতে বলা হয়েছিল, তারা সেই পরীক্ষা করার পর দেখেন, এটি স্বাভাবিকভাবে কাজ করছে। সাধারণ বোন ম্যারো সেলের ক্ষতিও করছে না। বেশ কয়েকবছর গবেষণার পর এই ফল স্বাভাবিকভাবে উচ্ছ্বসিত করেছে গবেষকের।

পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে চিকিৎসকরা বলেছেন, অন্য ক্যান্সার সেলের ওপর এবার এই ওষুধ পরীক্ষা করা হবে। সেই সঙ্গে সারা পৃথিবীতে ক্যান্সার পরীক্ষা করছেন যাঁরা, তাদের এই বিষয়ে এগিয়ে আসার কথাও বলেছেন গবেষকরা।

ট্যাগ: bdnewshour24