banglanewspaper

রাজাকারের তালিকায় মুক্তিযোদ্ধাদের নাম থাকায় ‘বিতর্কিত’ তালিকা স্থগিত করা হয়েছে। এ নিয়ে তুমুল বিতর্কের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীকে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেন। তিনি তালিকাটি যাচাই-বাছাই করতে বলেন। সারা দেশের মুক্তিযুদ্ধে বিরোধিতাকারী ১০ হাজার ৭৮৯ রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। প্রকাশিত তালিকায় স্বীকৃত অনেক মুক্তিযোদ্ধার নাম রাজাকার হিসেবে ছাপা হয়।

তীব্র সমালোচনার মুখে প্রকাশিত রাজাকারের তালিকা বাতিল হওয়ার পর এবার মহান মুক্তিযদ্ধের স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকারদের নতুন তালিকা তৈরি এবং তা প্রকাশ করবে সংসদীয় কমিটি।

রবিবার (৯ আগস্ট) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

রাজাকারের তালিকা প্রস্তুত করতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি শাজাহান খানকে আহ্বায়ক করে একটি সাব-কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- স্থায়ী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম, রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু, এবি তাজুল ইসলাম, ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল ও মোসলেম উদ্দিন আহমেদ।

এবার রাজাকারদের তালিকা তৈরিতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের মধ্যে যারা সংসদ সদস্য আছেন, তাদের সহযোগিতা নেয়া হবে। এই সাব কমিটি যুদ্ধকালীন কমান্ডার এবং উপজেলা পর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড থেকে রাজাকারদের তথ্য সংগ্রহ করবে।

এর আগে গত বছর বিজয় দিবসের আগে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে বিরোধিতাকারী ১০ হাজার ৭৮৯ রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। প্রকাশিত তালিকায় স্বীকৃত অনেক মুক্তিযোদ্ধার নাম রাজাকার হিসেবে ছাপা হয়। এ নিয়ে দেশজুড়ে চলছে নানা সমালোচনা। রাজাকারের তালিকা নিয়ে এরই মধ্যে ভিন্নভিন্ন বক্তব্য এসেছে সরকারের পক্ষ থেকে। মুক্তিযোদ্ধা, সুশীল সমাজ, বিএনপিসহ নানা রাজনৈতিক দলও এ নিয়ে মন্তব্য করে।

ট্যাগ: bdnewshour24