banglanewspaper

সীমান্তে চোখ রাঙানোর পাশাপাশি ভারতের উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থার উপরও নজর পড়েছে চীনের। ২০০৭ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত ভারতের উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিতে একাধিক বার আক্রমণ চালিয়েছে তারা। কম্পিউটার নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ২০১৭-তেও একই ধরনের হামলা চালানো হয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চায়না এরোস্পেস স্টাজিড ইনস্টিটিউট (সিএএসআই)-এর রিপোর্টে এমনই চাঞ্চল্যকর দাবি করা হয়েছে।

সিএএসআই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি থিঙ্কট্যাঙ্ক সংস্থা। মার্কিন সরকারের সচিব স্থানীয় আধিকারিক, চিফ অব স্টাফ, বায়ুসেনা এবং বিশেষ বাহিনীর নেতাস্থানীয় লোকজনের পরামর্শদাতা হিসেবে কাজ করে তারা। এ ছাড়াও তাদের গৃহীত সিদ্ধান্ত কতটা কার্যকর হয়ে উঠতে পারে, বিচার-বিবেচনার মাধ্যমে তা নিয়ে মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর এবং সরকারের অন্যান্য বিভাগের নীতি নির্ধারণকারীদের পরামর্শ দেয় ওই সংস্থা।

২০১২ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত এই সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য তুলে ধরে ১৪২ পাতার একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে সিএএসআই। তাতে বলা হয়েছে, মহাকাশে উপগ্রহ প্রতিরোধ প্রযুক্তি রয়েছে চীনের। তার মাধ্যমে প্রতিদ্বন্দ্বী দেশের মহাকাশ প্রযুক্তি এবং নির্দিষ্ট কক্ষপথে পৃথিবীকে অনুসরণ করে চলা উপগ্রহের উপর হামলা চালায় তারা। এই কাজের জন্য চীনের কাছে কো-অর্বিটাল স্যাটেলাইট, যা কিনা শত্রুপক্ষের উপগ্রহকে অনুসরণ করে, কৃত্রিম উপগ্রহ প্রতিরোধী ক্ষেপণাস্ত্র, জ্যামার্স এবং সাইবার অস্ত্র রয়েছে। শত্রুপক্ষকে সম্পূর্ণ কার্যত বোবা-কালা করে রেখে যাতে তাদের উপর হামলা চালানো যায়, তার জন্য চীনা সেনা (পিএলএ)-র হাতে ইতিমধ্যেই বিশেষ প্রযুক্তি এসে পৌঁছেছে এবং সেই প্রযুক্তিতে তারা আরও উন্নত করে তোলার চেষ্টা করছে বলেও ওই রিপোর্টে জানানো হয়েছে।

এর আগে ২০১৯ সালে আন্তর্জাতিক নীতি সংক্রান্ত থিঙ্ক ট্যাঙ্ক সংস্থা কার্নেগি এনডাওমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল পিস-এর তরফে প্রকাশিত একটি রিপোর্টেও একই দাবি করা হয়। শত্রুপক্ষের আক্রমণ প্রতিহত করতে সক্ষম প্রযুক্তি প্রদর্শন করতে ভারত যখন ব্যস্ত, চীন ইতিমধ্যেই উন্নত ধরনের সাইবার হানা প্রযুক্তি তৈরি করে ফেলেছে। শত্রুপক্ষের মহাকাশযান বা উপগ্রহ হাইজ্যাক করা, তাদের প্রযুক্তি বিকল করে দিতে সক্ষম তারা। তার জন্য মাটিতে, আকাশে এবং মহাকাশে রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি জ্যামার তৈরিতে বিনিয়োগ রয়েছে তাদের। তার মাধ্যমে আপলিঙ্ক, ডাউনলিঙ্ক, ক্রশলিঙ্কগুলিকে নিশানা করে শত্রুপক্ষের মহাকাশ প্রযুক্তিগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম তারা। সেখান থেকে তথ্য চুরিও করে নিতে পারে।

তবে প্রায়শই সাইবার হানার ঘটনা ঘটলেও, ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো)-র প্রযুক্তি নিরাপদই রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংস্থার প্রধান কে শিবন। তিনি জানান, ভারতের একটি স্বাধীন এবং বিচ্ছিন্ন নেটওয়ার্ক রয়েছে, সাধারণ মানুষের নজর থেকে তা দূরে রাখা হয়েছে। ইন্টারনেটের সঙ্গেও সেটি সংযুক্ত নয়। তাই ওই প্রযুক্তি নিরাপদ রয়েছে। ইসরোর আরও একাধিক সূত্রে জানা গিয়েছে, সাইবার হানার ঘটনা ঘটলেও, তার পিছনে কে রয়েছে তা নির্ধারণ করা সম্ভব নয়। সাইবার হানার ক্ষেত্রে সতর্কবার্তা পৌঁছে দিতে বিশেষ প্রযুক্তি রয়েছে ইসরোর কাছে। তাই চীন এ রকম ঘটিয়ে থাকলেও, ব্যর্থই হতে হয়েছে তাদের। সূত্র: আনন্দবাজার

ট্যাগ: bdnewshour24

আন্তর্জাতিক
শ্রীলঙ্কার বিক্ষোভকারীদের মধ্যে বিভক্তি

banglanewspaper

শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোর ‘গ্যালে ফেস গ্রিন’ উদ্যানের বিক্ষোভকারীদের মধ্যে বিভক্তি তৈরি হয়েছে।

গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগের জেরে দিন দশেক আগে নিরাপত্তা বাহিনীর হামলার পর আন্দোলনকারীরা সেখানে অবস্থান ধরে রাখা নিয়ে বিভক্ত হয়ে পড়েছে।

আন্দোলনকারীদের এই বিভক্তির মধ্যে প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে রবিবার জানান, গোতাবায়া রাজাপক্ষের দেশে ফেরার সঠিক সময় এখনো হয়নি। তিনি দেশে ফিরলে এই মুহূর্তে রাজনৈতিক উত্তেজনা বাড়বে।

ট্যাগ:

আন্তর্জাতিক
স্ত্রীকে নিয়ে রিসোর্টে যাওয়ার পরদিন স্বামীর মরদেহ উদ্ধার

banglanewspaper

কক্সবাজার শহরের কলাতলী এলাকার রিসোর্ট থেকে সৌরভ সিকদার (৩৪) নামে এক পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮টার দিকে কলাতলীর ডলফিন মোড় এলাকার ওয়ার্ল্ড বিচ রিসোর্ট থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত সৌরভ সিকদার কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়নের সিকদার পাড়া এলাকার মাস্টার হাসান শহীদের ছেলে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সেলিম উদ্দীন বলেন, গতকাল রোববার (৩১ জুলাই) সৌরভ সিকদার তার স্ত্রীকে নিয়ে ওই রিসোর্টে ওঠেন। পরে সোমবার ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় থাকা সৌরভের মরদেহ দড়ি ছিঁড়ে রিসোর্টের রুমে পড়ে যায়। এ সময় তার স্ত্রীও ওই কক্ষে ছিলেন। পরে তার চিৎকারে রিসোর্টের লোকজন এসে সৌরভের দেহ মাটিতে পড়ে থাকতে দেখে। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।

বিষয়টি গুরুত্বসহকারে খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান, পরিদর্শক সেলিম। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ট্যাগ:

আন্তর্জাতিক
বিশ্বে করোনায় কমেছে মৃত্যু ও আক্রান্ত

banglanewspaper

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৬৩ হাজার ৫৫৪ জন। এ সময় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ১৫৪ জনের। এ ছাড়া এদিন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭ লাখ ৩৫ হাজার ৫০৬ জন।

রোববার (৩১ জুলাই) সকালে করোনার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

এর আগে শনিবার (৩০ জুলাই) বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮ লাখ ৩৫ হাজার ৩০৮ জন। এ সময় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৯০৭ জনের। এ ছাড়া এদিন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮ লাখ ৬০ হাজার ৩০৫ জন।

ওয়ার্ল্ডোমিটারসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৮ কোটি ১৪ লাখ ৫৮ হাজার ২২১ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৪ লাখ ১৮ হাজার ৭৫১ জনের।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় জাপানে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ২১ হাজার ৯৩৮ জন এবং মারা গেছেন ১৩০ জন। ব্রাজিলে মারা গেছেন ১৬২ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ২৫৯ জন। যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ৬৭৯ জন এবং মারা গেছেন ৩১ জন। ফ্রান্সে আক্রান্ত হয়েছেন ৪১ হাজার ২৭৪ জন। দক্ষিণ কোরিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজার ৯৪৪ জন এবং মারা গেছেন ৩৫ জন। ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৯ হাজার ৫৭১ জন এবং মারা গেছেন ১২১ জন। মেক্সিকোতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৩ হাজার ২৪৮ জন এবং মারা গেছেন ৭৯ জন। তাইওয়ানে মারা গেছেন ৬০ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ২১ হাজার ৫০১ জন।

একইসময়ে ইরানে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৫০৫ জন এবং মারা গেছেন ৪৬ জন। রাশিয়ায় মারা গেছেন ৪৩ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১২ হাজার ২৪৮ জন। নিউজিল্যান্ডে আক্রান্ত হয়েছেন ৬ হাজার ৪৬৯ জন এবং মারা গেছেন ৬৭ জন। অস্ট্রেলিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৯ হাজার ১৫৭ জন এবং মারা গেছেন ১৩৫ জন। থাইল্যান্ডে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৯৬২ জন এবং মারা গেছেন ৩২ জন। চিলিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ১৮৮ জন এবং মারা গেছেন ৩১ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে, একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।

ট্যাগ:

আন্তর্জাতিক
ফের করোনায় আক্রান্ত বাইডেন

banglanewspaper

মাত্র ১০ দিনের ব্যবধানে ফের করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

শনিবার (৩০ জুলাই) হোয়াইট হাউজ থেকে এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ২১ জুলাই করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বাইডেন। এরপর গত মঙ্গলবার থেকে শুক্রবারের মধ্যে চারবার করোনা পরীক্ষা করান তিনি। চারবারেই ফলাফল পজিটিভ এসেছে।

বাইডেনের চিকিৎসক জানিয়েছেন, নতুন করে বাইডেনের চিকিৎসা নিতে হবে না। তবে তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

এদিকে করোনা শনাক্ত হওয়ায় বাইডেনের উইলমিংটন ও মিশিগান সফর বাতিল করা হয়েছে। সূত্র : বিবিসি

ট্যাগ:

আন্তর্জাতিক
তাইওয়ান ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁশিয়ারি দিলো চীন

banglanewspaper

দুই ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলা ফোনকলে তাইওয়ানের বিষয়ে একে অপরকে সতর্ক করেছেন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের প্রেসিডেন্ট।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে বলেছেন, দ্বীপটির মর্যাদা পরিবর্তনে যেকোনো একতরফা পদক্ষেপের বিরোধিতা করে যুক্তরাষ্ট্র। তবে তিনি যোগ করেন, তাইওয়ানের বিষয়ে মার্কিন নীতি পরিবর্তন হয়নি।

বেইজিং জানায়, শি বাইডেনকে এক-চীন নীতি মেনে চলতে আহ্বান জানান এবং তাকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, যে আগুন নিয়ে খেলবে সে পুড়ে যাবে।

মার্কিন হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরের পরিকল্পনার বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েছে।

মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট জানায়, পেলোসি সফরের কোনো ঘোষণা দেননি। তবে চীন সতর্ক করে বলেছে, 'গুরুতর পরিণতি' হবে যদি তিনি এই ধরনের সফরে যান।

পেলোসি এ সফরে গেলে তিনি হবেন ১৯৯৭ সালের পর থেকে তাইওয়ান সফরকারী সবচেয়ে উচ্চ পদস্থ মার্কিন কর্মকর্তা ও রাজনীতিবিদ।

বাইডেন প্রশাসনের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, বৃহস্পতিবারের ফোন কলের সময় বাইডেন ও শি একটি মুখোমুখি বৈঠকের ব্যবস্থা করার বিষয়েও আলোচনা করেন।

২০১৫ সালে বাইডেন যখন মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট ছিলেন, তখন চীনা নেতা শি যুক্তরাষ্ট্র সফর করেছিলেন। কিন্তু বাইডেন প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরে তারা এখন পর্যন্ত সরাসরি সাক্ষাৎ করেননি।

চীন তাইওয়ানকে একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী প্রদেশ হিসেবে বিবেচনা করে। তারা মনে করে, তাইওয়ান অবশ্যই দেশের একটি অংশ হয়ে উঠবে। এজন্য শক্তি ব্যবহারের সম্ভাবনাকে অস্বীকার করে না তারা।

এক-চীন নীতির অধীনে, ওয়াশিংটন তাইপেকে কূটনৈতিকভাবে স্বীকৃতি দেয়নি। তবে যুক্তরাষ্ট্র গণতান্ত্রিকভাবে স্বশাসিত দ্বীপটিতে অস্ত্র বিক্রি করে, যাতে এটি আত্মরক্ষা করতে পারে।

সূত্র : বিবিসি

ট্যাগ: