banglanewspaper

সিলেটের এমসি কলেজে বেড়াতে আসা দম্পতিকে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসে স্বামীকে মারধর করে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ তাদের উদ্ধার করেছে। পরে ওই তরুণীকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় মামলা হলেও এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। 

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে বেড়াতে আসেন দক্ষিণ সুরমাার শিববাড়ি এলাকার এ দম্পতি। রাত ৯টার দিকে কয়েকজন দুর্বৃত্ত স্বামীসহ স্ত্রীকে পার্শ্ববর্তী একটি ছাত্রাবাসে তুলে নিয়ে যায়। পরে স্বামীকে আটকে রেখে মারধর করে স্ত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগ কর্মী রবিউল, তারেক, রনি, সাইফুর, মাহফুজসহ কয়েকজন। 

খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল রাত সাড়ে ১০টার দিকে ছাত্রাবাস থেকে তাদের উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

এদিকে, লোমহর্ষক এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন ধর্ষণের শিকার তরুণীর স্বামী। 

এর আগে গতরাত ২টার দিকে এমসি কলেজের ওই ছাত্রাবাসে অভিযান চালিয়ে ধর্ষণের ঘটনার জড়িত ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমানের রুম থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ বিপুল সংখ্যক দেশিয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় একটি আগ্নেয়াস্ত্র, চারটি লম্বা দা, একটি ছুরি, দুটি জিআই পাইপ উদ্ধার করে নগরীর শাহপরাণ থানা পুলিশ। 

অভিযুক্তদের ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানিয়েছেন শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী। 

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘গণধর্ষনের ঘটনার পর রাতেই এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় সাইফুর রহমানের রুম থেকে আগ্নেয়াস্ত্র, ধারালো অস্ত্র ও ছুরি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

ট্যাগ: bdnewshour24