banglanewspaper

অ্যালোভেরা, এটির উপকারীতা সম্পর্কে কম-বেশি সবাই জানে। এতে রয়েছে ক্যালসিয়াম, জিংক, সোডিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম, ফলিক অ্যাসিড, ম্যাঙ্গানিজ, অ্যামাইনো অ্যাসিড, ও ভিটামিন-এ বি৬ ও বি২। যা শরীরের জন্য বেশ উপকারী। অ্যালোভেরা চুল ভালো রাখতে অনেকে ব্যবহার করেন। এছাড়া অনেকে খেয়েও থাকেন এটি।

অ্যালোভেরার যেসব গুণ আমরা অনেকেই জানি না, তা নিয়ে ইন্ডিয়ান টাইমস বিস্তারিত প্রকাশ করেছে।

ডায়াবেটিস দূর করে
বিশ্বে বেড়েই চলেছে ডায়াবেটিস আক্রান্তের সংখ্যা। বিভিন্ন বয়সীর মানুষের মধ্যে এ সমস্যা দেখা যায়। অ্যালোভেরা রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ কমিয়ে দেয় এবং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে ভূমিকা রাখে। তাই যারা ডায়াবেটিসের সমস্যায় ভুগছেন তারা নিয়মিত অ্যালোভেরা খেতে পারেন।

চুলের যত্নে
চুল পড়া কমাতে অনেকেই অ্যালোভেরা ব্যবহার করেন। এটি বেশ উপকারী। অ্যালোভেরায় যে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টিফাঙ্গল উপাদান রয়েয়ে তা চুল পড়া ও খুশকির সমস্যা দূর করে থাকে। এছাড়া চুলের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতেও অ্যালোভেরা ব্যবহার করতে পারেন।

হজম শক্তি বাড়ায়
অ্যালোভেরা হজম শক্তি বাড়াতেও বেশ কার্যকরী। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এক গ্লাস পানি বা গুড়ের শরবতের সঙ্গে অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে খেলে পাকস্থলী ঠান্ডা ও গ্যাসের সমস্যা দূর হবে।

ত্বকের যত্নে
ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখতে অ্যালোভেরা বেশ উপকারী। এছাড়া চুলকানি, রোদে পড়া দাগ দূর করতেও এটি ভালো ভূমিকা রাখে। এছাড়া বয়সের ছাপ অনেকটাই দূর হয় এটি ব্যবহারে।

হার্ট ও দাঁত ভালো রাখে
হার্ট ও দাঁত ভালো রাখতেও অ্যালোভেরার জুস ভূমিকা রাখে। অ্যালোভেরার জুস পানে শরীরের দূষিত রক্ত বের হয়ে যাবে এবং হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখবে। এছাড়া দাঁত ও মারির ব্যথা এবং ইনফেকশন নিবারণে এটি ভূমিকা রাখে।

ওজন কমাতে
শরীরের ওজন কমাতে অনেকেই বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে থাকেন। কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই অ্যালোভেরা জুসের অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপাদান শরীরে জমে থাকা মেদ দূর করে ওজন কমাতে সাহায্য করে। ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে নিয়মিত অ্যালোভেরার জুস পান করতে পারেন।

এছাড়া অ্যালোভেরা ব্যবহারে নানা উপকার পেয়ে থাকবেন। আর এর কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

ট্যাগ: bdnewshour24