banglanewspaper

এশিয়ার শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হেনেছে ফিলিপাইনে। রবিবার (১ নভেম্বর) ভোর ৪টা ৫০ মিনিটে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২২৫ কিলোমিটার বেগে ধেয়ে আসা এই ঘূর্ণিঝড়টির নাম দেয়া হয়েছে ‘গণি’। চলতি বছর এশিয়া অঞ্চলে এটিই এ পর্যন্ত সবচেয়ে বড় ও ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়। 

আসুরিক শক্তিতে আছড়ে পড়া এই ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে ইতোমধ্যে ফিলিপাইনে ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। দেশটির ক্যাটান্ডনস দ্বীপে ভোরের দিকে প্রথম আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড়টি। 

দেশটির প্রধান দ্বীপ যেখানে রাজধানী ম্যানিলা অবস্থিত, সেই লুজানের অন্তত ১০ লাখ মানুষকে বাড়ি থেকে বের করে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। 

ফিলিপাইনের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে এবছর সরকার ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় জোর প্রস্তুতি নিতে পারেনি। এ পর্যন্ত দেশটিতে করোনা ভাইরাসে ৭ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। 

এদিকে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে লুজানসহ ভিসায়াস ও মিন্দানাও দ্বীপের ভূ-অঞ্চলে বন্যা ও ভারি বৃষ্টিজনিত ব্যাপক ভূমিধসের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। 

ফিলিপাইন অ্যাটমোসফেরিক, জিওফিজিক্যাল অ্যান্ড অ্যাস্ট্রনমিক্যাল সার্ভিসেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (পাগাসা) জানিয়েছে, পরবর্তী ১২ ঘণ্টায় সহিংস বাতাস ও তীব্র বৃষ্টিপাতের জোর সম্ভাবনা রয়েছে। রবিবার দুপুরের পর থেকেই ঘূর্ণিঝড়টি ম্যানিলা অতিক্রম করে দক্ষিণ চীন সাগরের দিকে অগ্রসর হবে। 

২০১৩ সালে ফিলিপাইনে ঘূর্ণিঝড় হাইয়ানের আঘাতে ৬ হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল।

ট্যাগ: bdnewshour24