banglanewspaper

নভেল করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে টানা প্রায় সাড়ে ৭ মাস ধরে বন্ধ থাকা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো কবে খোলা হবে, কিংবা চলমান করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আদৌ খোলা হবে কি হবে না- এ নিয়ে আগামী দু-একদিনের মধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত জানাবে। 

সোমবার (০৯ নভেম্বর) দুপুরে মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর সচিবালয়ে সীমিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। 

এদিন সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে এবং মন্ত্রিপরিষদের অন্য সদস্যরা সচিবালয় থেকে ভার্চুয়াল এই সভায় যোগ দেন। 

সরকার ঘোষিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। ফলে ১৪ নভেম্বরের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে কিনা- জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘এটা শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানাবে আপনাদের, কাল-পরশুর মধ্যে।’

বৈঠক থেকে প্রধানমন্ত্রীর কোনও নির্দেশনা আছে কিনা- এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে খন্দকার আনোয়ারুল বলেন, ‘খুলনা ডিভিশন থেকে একটা স্ট্রং অ্যাকশন (মোবাইল কোর্ট পরিচালনা) নেয়া হচ্ছে। আমরাও চারদিকে সবাইকে বলেছি। প্রধানমন্ত্রীও এগ্রি করছেন, গুড এপ্রিশিয়েট করেছেন। কিছু স্ট্রিক ভিউতে যেতে হবে। এখন পর্যন্ত আমরা কমফোর্টেবল জোনে আছি।’

এসময় তিনি করোনা মোকাবিলায় জনসচেতনতা বাড়াতে গণমাধ্যমের ভূমিকার গুরুত্বারোপ করেন। 

৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। ১৭ মার্চ থেকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। এরপর কয়েক দফায় এই ছুটি বাড়ানো হয়। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগামী ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি চলছে। 

এরইমধ্যে এসএসসি ও এইচএসসি’র আসছে বছরের পরীক্ষার্থীদের কথা মাথায় রেখে ১৫ নভেম্বর থেকে সীমিত পরিসরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।  

গেল ২৯ অক্টোবর এক ভার্চুয়াল প্রেস ব্রিফিংয়ে এসএসসি পরীক্ষা পেছানো হতে পারে কিনা- এমন প্রশ্নে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি আছে কিনা সেটি দেখবো। যদি প্রয়োজন হয় তখন পিছিয়ে যেতে পারে। সেটি পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে। পরীক্ষা পেছাবে কিনা আমরা এখনই বলতে পারছি না।’ 

ওই প্রেস ব্রিফিংয়ে ড. দীপু মনি আরও জানিয়েছিলেন, পরিস্থিতি অনুকূলে আসলেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে। তাছাড়া খোলার সুযোগ নেই। তবে ১৪ নভেম্বরের পর আংশিকভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24