banglanewspaper

অর্থনৈতিকভাবে দরিদ্র দেশগুলোর সহজে কোভিড-১৯ টিকা পাবার নিশ্চয়তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। যুক্তরাষ্ট্র ১১ ডিসেম্বর থেকে তার দেশের কিছু নাগরিককে টিকা দেওয়া শুরু করতে পারে- এমন ঘোষণা আসার পর জার্মান চ্যান্সেলর দরিদ্র দেশগুলোর সহজে টিকাপ্রাপ্তির সম্ভাবনা নিয়ে এ উদ্বেগ প্রকাশ করলেন। 

বিশ্বের শীর্ষ অর্থনৈতিক ও শিল্পোন্নত দেশগুলোর জোট জি-২০র অনলাইন সম্মেলনে অংশ নেয়া সব দেশের নেতারা বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের টিকার ন্যায্য বিতরণে প্রতিশ্রুতি দিলেও মেরকেল দরিদ্র দেশগুলোর টিকাপ্রাপ্তি নিশ্চিতে অগ্রগতির পরিমাণ খুবই সামান্য উল্লেখ করে সবাইকে সতর্ক করেছেন।

একইসঙ্গে গ্লোবাল ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স গ্যাভির সঙ্গে আলোচনায় তিনি এ প্রসঙ্গটি তোলার আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, “কখন এ সংক্রান্ত আলোচনা শুরু হবে তা নিয়ে গ্যাভির সঙ্গে কথা বলবো আমরা। কেননা, এ প্রসঙ্গে যে এখন পর্যন্ত কিছুই হয়নি তা নিয়ে আমি একরকম উদ্বিগ্ন।”

সম্মেলনে বিশ্বের ধনী দেশগুলো কোভিড-১৯ মহামারির কারণে অর্থনৈতিকভাবে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র দেশগুলোকে সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও কীভাবে তা দেওয়া হবে তার বিস্তারিত জানায়নি। যদিও জি২০ সম্মেলনে অংশ নেওয়া দেশগুলো কোভিড-১৯ এর সম্ভাব্য ভ্যাকসিনগুলোর উৎপাদন এবং ন্যায্য বিতরণে সহযোগিতার পাশাপাশি ভাইরাস শনাক্তকরণে পরীক্ষা ও চিকিৎসায় দ্রুত অর্থ ছাড়েরও আশ্বাস দিয়েছে।

সম্মেলন শেষে যৌথ বিবৃতিতে জি-২০ দেশগুলোর নেতারা বলেছেন,“সাশ্রয়ী মূল্যে টিকাপ্রাপ্তি ও টিকায় সবার ন্যায়সঙ্গত প্রবেশাধিকার নিশ্চিতে কোনো প্রচেষ্টাই বাদ রাখবো না আমরা।” 

সৌদি আরবের অর্থমন্ত্রী মোহাম্মদ আল-জাদান পরে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “জি-২০ দেশগুলো একটি বিষয়ে একমত হয়েছে যে, যদি আমরা কোনো দেশকে পেছনে রাখি, তাহলে আমরাও পিছিয়ে পড়বো।”

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনে আবির্ভূত হওয়ার পর এরই মধ্যে বিশ্বের প্রায় ৬ কোটি মানুষের শরীরে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে; মৃত্যু হয়েছে প্রায় ১৪ লাখ মানুষের। ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণের নতুন ঢেউয়ের কারণে সাম্প্রতিক দিনগুলোতে শনাক্ত রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যাও হু হু করে বাড়ছে।

ট্যাগ: bdnewshour24